৫ ঘণ্টা আগের আপডেট

ক্লান্ত হয়ে পড়েছে পৃথিবী!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট ৭:৩৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০১৮

ধরিত্রীর ওপর আমাদের চাপ ক্রমশ মাত্রা ছাড়াচ্ছে, যার ফলাফল মোটেই ভালো নয়। বিজ্ঞানীরা বলছেন, সারা বছর ধরে আমাদের যে প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার করা উচিত, তা আমরা ব্যবহার করে ফেলেছি৷ ফলে ক্রমশঃ ক্লান্ত হয়ে পড়ছে পৃথিবী।

আমাদের আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশি
বিশ্বের নব্বইটির বেশি সংগঠনের সমন্বয়ে তৈরি আন্তর্জাতিক থিংকট্যাংক ‘গ্লোবাল ফুটপ্রিন্ট নেটওয়ার্ক’ প্রতিবছর একদিনকে ‘আর্থ ওভারশুট ডে’ হিসেবে পালন করে৷ এই দিনটি সাধারণত সেদিন হয়, যেদিন পৃথিবী একবছরে যা পুর্নউৎপাদন করতে পারে তারচেয়ে বেশি প্রাকৃতিক সম্পদ মানুষ খরচ করে ফেলে৷ এটা অনেকটা আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশি হওয়ার মতো ব্যাপার৷ চলতি বছর সেই দিনটি ছিল পহেলা আগস্ট৷

কার কতটা প্রয়োজন, জেনে নিন
আজকে পৃথিবীর মানুষ যে পরিমাণ প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার করছে তার যোগান দিতে কার্যত এক দশমিক সাতটি পৃথিবী দরকার৷ আর যদি আলাদা আলাদাভাবে অঞ্চলের কথা চিন্তা করেন, তাহলে জার্মানরা যেভাবে প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবহার করে, সেভাবে গোটা বিশ্বের মানুষ ব্যবহার করলে তাদের চাহিদা মেটাতে প্রয়োজন হতো তিনটির বেশি পৃথিবী৷ মার্কিনিদের ক্ষেত্রে এটি ৪ দশমিক নয়টি পৃথিবী৷

কার্বন পুড়িয়ে বিপদ আনা হচ্ছে
আমাদের বাস্তুসংস্থান সংক্রান্ত ফুটপ্রিন্টের ৬০ শতাংশের বেশি আসছে জীবাশ্ম জ্বালানী এবং কাঠ পোড়ানোর মাধ্যমে৷ একেবারে নির্দিষ্ট করে বলতে গেলে চীন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ভারত হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় কার্বন ডাই-অক্সাইড উৎপাদক৷

বনজঙ্গল উজাড়
গাছ থেকে কাঠ আসে যা কাগজ তৈরির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কাঁচামাল৷ তাছাড়া গাছ মাটির ক্ষয় রোধে সহায়তা করা ছাড়াও ভূগর্ভস্থ পানির আধার পূর্ণ রাখে এবং প্রকৃতি থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড শুষে নিয়ে আমাদের জন্য অক্সিজেন ছাড়ে৷ তাসত্ত্বেও প্রতিবছর বিশ্ব ৩৩ লাখ হেক্টর বন হারাচ্ছে৷

অতিরিক্ত মাছ ধরায় বিপদ
আমরা সাগর থেকে যেহারে মাছ ধরছি তা উৎপাদনের গতির চেয়ে অনেক বেশি৷ চলতি বছরের এই সময়ের মধ্যেই পৃথিবীর একতৃতীয়াংশ মাছের আধারে প্রজনন ক্ষমতার চেয়ে বেশি মাছ ধরা হয়ে গেছে৷ একদিকে, যেমন বেশ মাছ ধরা হচ্ছে, অন্যদিকে কার্বনর ডাই-অক্সাইড নির্গমনের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় সমুদ্রের পানিও ক্রমশ বিষাক্ত হয়ে যাচ্ছে যা সামুদ্রিক জীবের উপর বিরুপ প্রভাব ফেলছে৷

বড় হুমকি পানির ঘাটতি
জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচির হিসেব অনুযায়ী, ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী পানি সংকটে ভুগবে৷ ভূগর্ভস্থ পানির পরিমাণ ক্রমশ কমে যাচ্ছে কিংবা নানা বিষাক্ত উপাদানের সংমিশ্রণে পানের অযোগ্য হয়ে যাচ্ছে৷

প্রত্যেক মানুষের জন্য প্রয়োজন ১.৮ হেক্টর
পরিবেশগত টেকসই পদ্ধতি বিবেচনায় আনলে পৃথিবীর একজন মানুষের সাধারণ চাহিদা মেটাতে ১ দশমিক আট হেক্টর জমির প্রয়োজন৷ কিন্তু গড়ে একজন জার্মান ব্যবহার করছেন ৫ দশমিক এক হেক্টর জমি৷

সূত্র : ডি ডব্লিউ

পাঠকের মন্তব্য

সম্পাদক: হাসিবুল ইসলাম
বার্তা সমন্বয়ক : তন্ময় তপু
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো. শামীম
প্রকাশক: তারিকুল ইসলাম

নীলাব ভবন (নিচ তলা), দক্ষিণাঞ্চল গলি,
বিবির পুকুরের পশ্চিম পাড়, বরিশাল- ৮২০০।
ফোন: ০৪৩১-৬৪৮০৭, মোবাইল: ০১৭১১-৫৮৬৯৪০
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত বরিশালটাইমস

rss goolge-plus twitter facebook
TECHNOLOGY:
টপ
  বরিশাল ছাত্রদলের পকেট কমিটি নিয়ে উত্তাপ, বিএনপি কার্যালয়ে তালা  রাজাকারদের কাছে আতঙ্কিত নাম বাবুল  বরগুনার এমপি রিমনের প্রকাশ্য সন্ত্রাস, মারধর করে টাকা ছিনতাই!  ‍উজিরপুরে পাচারকালে ভিজিএফের ১৪০ কেজি চাল উদ্ধার  কারাগারে ঘুরে বেড়াচ্ছে তিন চোখওয়ালা নারী, আতঙ্কে কয়েদিরা  মামুন তসলিমে নাখোশ বরিশাল ছাত্রদল, রাহুমুক্ত হতে চায় নেতাকর্মীরা  ঈদে আসছে বরিশাইল্যা “গুড়াগুড়া”  ঝালকাঠি জেলা প্রশাসকের মোবাইল নম্বর ক্লোন করে টাকা দাবি  বরিশাল ছেড়ে যাওয়া মাইক্রোবাস ঢুকলো দোকানে, স্কুলছাত্রী নিহত  আজান দেয়ার সময় মসজিদেই প্রাণ গেল মুয়াজ্জিনের