২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

আমতলীর ২৯ মাদ্রাসার একটিতেও নেই শহীদ মিনার

বরিশালটাইমস, ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৫:৫১ অপরাহ্ণ, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আমতলীর ২৯ মাদ্রাসার একটিতেও নেই শহীদ মিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:: বরগুনার আমতলী উপজেলার ২৯টি মাদ্রাসার কোনোটিতেই শহীদ মিনার নেই। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা নিজ উদ্যোগে বাঁশ ও কলা গাছ দিয়ে অস্থায়ী মিনার নির্মাণ করে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করার উদ্যোগ নিয়েছে।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের দাবি, এসব মাদ্রাসায় সরকারিভাবে যেন শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। আমতলী উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, আমতলী পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নে ২৯টি দাখিল ও আলিম মাদ্রাসা রয়েছে। বেশ কয়েকটি মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভাষা আন্দোলনের ৭২ বছর পরেও এখন পর্যন্ত অত্র উপজেলার কোনো মাদ্রাসায় শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগও নেওয়া হয়নি। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ওই সকল মাদ্রাসাগুলোতে অস্থায়ীভাবে বাঁশ ও কলাগাছ দিয়ে শহীদ মিনার বানিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়া হয়।

উপজেলার গাজীপুর ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মো. জাকির হোসেন বলেন, আমাদের মাদ্রাসার মাঠ অনেক বড়। কোনো একটা পাশে যদি শহীদ মিনার নির্মাণ করা হতো, তাহলে আমরা সেখানে ভাষার জন্য শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে পারতাম।উপজেলার আমিন উদ্দিন আলিম মহিলা মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আ. সালাম বলেন, আমরা চাই উপজেলার সকল মাদ্রাসায় যেন শহীদ মিনার নির্মিত হয়। আমাদের মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা যেন ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারে। তিনি সরকারি উদ্যোগে প্রতিটি মাদ্রাসায় শহীদ মিনার নির্মাণের দাবি জানান।

বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক শাহজাহান কবির বলেন, মাতৃভাষার অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারসহ অনেকে অকাতরে জীবন দিয়েছে। রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন ও শহীদদের ওই আত্মত্যাগের কথা কখনোই ভোলার নয়।

রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনের ৭২ বছর ও স্বাধীনতার ৫২ বছর পরেও ওই সকল মাদ্রাসায় শহীদ মিনার নেই, এটি লজ্জাজনক। যে জাতি ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে অথচ সেই জাতির দেশে মাদ্রাসাগুলোতে শহীদ মিনার নেই। ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতা যুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের জানাতে দ্রুত মাদ্রাসাগুলোতে শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে যত দ্রুত সম্ভব মাদ্রাসাগুলোতে শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশরাফুল আলম বলেন, আমিও চাই ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আমতলী উপজেলার প্রতিটি মাদ্রাসায় শহীদ মিনার নির্মিত হোক। বিষয়টি নিয়ে দ্রুত কাজ শুরু করার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

8 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন