১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

উজিরপুরে শত্রুতার জেরে দোকানঘরে আগুন দেয়ার অভিযোগ

Zahir Khan

প্রকাশিত: ০৯:৩৯ অপরাহ্ণ, ০১ জুন ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: বরিশালের উজিরপুরের গুঠিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের দোকানঘর পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী দোকান মালিক বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখসহ মোট ১১ জনের বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

গত রোববার (২৯ মে) রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের রৈভদ্রদী গ্রামের রৈভদ্রদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সম্মুখে আলাউদ্দিন হাওলাদারের মুদি দোকানে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গুঠিয়া ইউপির রৈভদ্রদী গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলী হাওলাদারের ছেলে আলাউদ্দিন হাওলাদার (৬০) এবং একই গ্রামের মৃত সফিজ উদ্দিন মোল্লার ছেলে সাহেব আলী মোল্লা (৪৫) ও জাহাঙ্গীর মোল্লার (৩৫) মধ্যে স্থানীয় বিভিন্ন বিষয় নিয়া দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। সবশেষ গত ২৮ মে পূর্ব বিরোধের জের ধরে নিজের মুদি দোকানঘরের সামনে আলাউদ্দিনের সাথে প্রতিপক্ষ সাহেব আলী, তার সহোদর জাহাঙ্গীর, একই ইউপির হরিদ্রাপুর গ্রামের মিজান খান ও বাবুগঞ্জ উপজেলার মুশরিয়া গ্রামের সবুজ ফরাজির বাকবিতন্ডা-হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে পরেরদিন ২৯ মে রাত সাড়ে ১২টার দিকে উল্লেখিত প্রতিপক্ষরা অজ্ঞাতনামা আরও ৭ থেকে ৮ জন সন্ত্রাসী নিয়ে আলাউদ্দিনের মুদি দোকানঘরে আগুন দেয়। আগুনের লেলিহান শিখা দেখে কিছুক্ষণের মধ্যেই ভুক্তভোগী আলাউদ্দিনসহ অন্যরা ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। ততক্ষণে দোকানঘরে আগুন দেয়া সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় এবং আলাউদ্দিনের মুদি দোকানঘরসহ তার পার্শ্ববর্তী নেয়ামত উল্লাহর ফার্নিচারের দোকনঘরও পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

ভুক্তভোগী আলাউদ্দিন মোল্লা অভিযোগ করে জানান, তিনিসহ স্থানীয় লোকজন দোকানঘরের আগুন নেভাতে গেলে প্রতিপক্ষ সাহেব আলী ও জাহাঙ্গীরসহ তাদের সহযোগীদের পালিয়ে যেতে দেখেছেন। কিন্তু তখন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টায় থাকায় প্রতিপক্ষদের আটক করতে পারেননি।

আলাউদ্দিন মোল্লা আরও জানান, প্রতিপক্ষদের দেয়া আগুনে তার দোকানঘরের আধপোড়া খুঁটি ও টিন ছাড়া সবকিছুই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে তার প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। একইভাবে পার্শ্ববর্তী ফার্নিচারের দোকানঘরের মালামাল পুড়ে নেয়ামত উল্লাহর প্রায় সাড়ে ৩ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে আগুন দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্তরা বলেন, ঘটনা ভিন্ন খাতে নিতে আলাউদ্দিন মোল্লা এ ধরনের ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলছেন।

এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আর্শাদ বলেন, আগুন দিয়ে মুদি দোকানঘর পোড়ানোর অভিযোগটি পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

36 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন