২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

একেই বলে ক্ষমতা, তিনি অবসরে গিয়েও নাজিরের চেয়ারে বহাল!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, ২৫ অক্টোবর ২০১৭

তিন বছর আগে চাকুরি থেকে অবসর নেয়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নাজির মো. ইউনুস মিয়া অফিস করে যাচ্ছেন। আর বিষয়টি নিয়ে কোন ওজর আপত্তি বা মাথা ব্যথা নেই খোদ জেলা প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের। এদিকে নাজিরের পদে নতুন যোগদান করা নাজির মো. হাবিবুর রহমান অফিস করছেন পাশের একটি পরিত্যাক্ত কক্ষে। তবে সে ( নাজির হাবিবুর রহমান) নাজির না কেরানী এমন কোন পদ পদবীর পরিচয়ও দিতে সাহস পাচ্ছেন না।

অবসরপ্রাপ্ত নাজির ইউনুস এতই প্রভাবশালী যে খোদ জেলা প্রশাসকও তার বিষয়ে কথা বলতে বিচলিত হয়ে পড়েন। যদিও জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান দায় এড়িয়ে ভিন্ন কথা বলছেন, অভিজ্ঞ বিধায় তাকে ম্যানপাওয়ার হিসেবে রাখা হয়েছে। চলতি দায়িত্বে থাকা নাজিরের বিষয়ে বলা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে তার বসার ব্যবস্থা করা হবে। আর সাবেক নাজিরকে অন্য চেয়ারের ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।

অভিযোগ রয়েছে- বিগত ৩ বছর যাবৎ একজন অবসরপ্রাপ্ত ব্যক্তি অন্যের চেয়ার দখল করে বসে অনৈতিকভাবে বিভিন্ন তদবির ও অনিয়মের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে আসছেন। আর এ বিষয়ে খোদ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কেউই কিছু জেনেও না জানার ভান করে আসছে। অবসরপ্রাপ্ত নাজির ইউনুস ওই চেয়ারে বসে নিয়ন্ত্রণ করে আসছে এলএ, এসএ, জুডিশিয়াল, ভূমিসহ জেলা প্রশাসকের দপ্তরের সব বিভাগের কর্মকান্ড।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, অবসর গ্রহণের পরেও নাজিরের চেয়ারে বসে জেলা প্রশাসকের কাছ থেকে অর্থের বিনিময়ে অনেককেই পাইয়ে দিয়েছেন সরকারি জমিসহ নানা সুযোগ সুবিধা। আর সরকারি কোঠায় থাকা লঞ্চের টিকেটের কথা বলার অপেক্ষা রাখে না।

বুধবার সরেজমিন গিয়ে তাকে বিভিন্ন ফাইল সামনে নিয়ে নাজিরের চেয়ারে বসে থাকতে দেখা গেছে অবসরপ্রাপ্ত নাজির মো: ইউনুসকে।

আর চলতি দায়িত্বে থাকা নাজির হাবিবুর রহমানকে দেখা পাশের একটি পরিত্যাক্ত কক্ষে একা বসে থাকতে। এসময় ছবি তুলতে চেষ্টা করলে তিনি (মো. ইউনুস) ফাইলগুলো টেবিলের নিছে লুকি রেখে দৌড়ে কক্ষ ত্যাগ করেন। এর পর পরই শুরু হয় পত্রিকার অঘোষিত মালিক, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কর্মচারী, সাংবাদিক ও ভূমি অফিসের এক তহসিলদারের মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ না করতে তদবির।

এক পর্যায়ে তহসিলদার মশিউর রহমান পল্টন প্রতিবেদককে বলে, আপনি যার (অবসরপ্রাপ্ত নাজির) সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সে আমার পিতা, আপনার পত্রিকার সম্পাদক কে? আপনাকে কে এ তথ্য দিয়েছে আমাকে এখনই বলতে হবে। সংবাদ প্রকাশ করলে দেখিয়ে দিব। এ ব্যাপারে অবসরপ্রাপ্ত নাজির ইউনুস মিয়া’র সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, আমি এখানে আছি উর্ধ্বতন কর্তপক্ষের নির্দেশে।

চলতি দায়িত্বে থাকা নাজির মো. হাবিবুর রহমান বলেন, আমাকে চেয়ারে বসতে দেয়া হচ্ছে না। আমি যোগদান করার পর থেকে এটেবিল থেকে ও টেবিল দৌড়ে বেড়াচ্ছি। ইউনুস সাহেব অবৈধ ভাবে আমার চেয়ার দখল করে বসে আসছে।

এসব বিষয়ে বরিশাল জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান’র সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, অভিজ্ঞ বিধায় তাকে ম্যানপাওয়ার হিসেবে রাখা হয়েছে। তবে তার নাজিরের চেয়ারে বসার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। চলতি দায়িত্বে থাকা নাজিরকে বিষয়টি খতিয়ে দেখে তার বসার ব্যবস্থা করা হবে। আর সাবেক নাজিরকে অন্য চেয়ারের ব্যবস্থা করে দেয়া হবে।’’

9 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন