৩৭ মিনিট আগের আপডেট বিকাল ১২:৩ ; রবিবার ; জানুয়ারি ২৯, ২০২৩
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

ভীতিকর বরিশাল, আ’লীগের ভুমিকা নিয়ে তুমুল বিতর্ক

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
৬:৪১ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২০

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক:: করোনাভাইরাস নিয়ে গোটা বরিশাল নগরীতে ভীতিকর পরিস্থিতি বিরাজ করলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের এক্ষেত্রে কোন মাথা ব্যাথা নেই। অন্যান্য রাজনৈতিক দল এই ভাইরাস প্রতিরোধে গণসচেতনতা তৈরিতে মাঠে নানান উদ্যোগ নিয়ে প্রসংশিত হচ্ছে। বিপরিত চিত্রে আ’লীগের শীর্ষ নেতাদের মাঠেতো দেখা নেই, কেউ কেউ অর্ন্তধানে চলে গেছেন বলে কথা উঠেছে। বিশেষ করে ক্ষমতার কেন্দ্রকিন্দুতে থাকা মহানগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ’র ভুমিকায় তুমুল সমালোচনার ঝড় বাইছে। গত সাত দিন যাবত এই শীর্ষ নেতা কোথায় অবস্থান করছেন তা তার ঘনিষ্ঠরাই নিশ্চিত করতে পারছে না। এনিয়ে পরষ্পরবিরোধী তথ্য পাওয়া গেছে। তার চারপাশে থাকা একটি অংশ বলছে- এই নেতা নিজ ঘরেই একাকী অবস্থান করছেন। অপর একটি অংশের দাবি- কালিবাড়ি সড়কের বাসভবনে সাত দিন যাবত আসছেন না। বরিশাল ক্লাবের একটি কক্ষে গোপনে অবস্থান নিয়ে সকলের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন। তার আগে জানিয়ে দিয়েছেন, সময় হলে অনুসারী-সমর্থকদের ডাকা হবে। দুর্যোগকালীন সিটি মেয়রের এই অর্ন্তধান রহস্য কী তা নিশ্চিত হওয়া গেছে, তিনি নিজেই না কী করোনাভাইরাস আতঙ্কে ভুগছেন।

উল্লেখ্য তরুণ নেতা ও মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ সাদিক আব্দুল্লাহ দলীয় কর্মসূচি বাদেও নানা অনুষ্ঠান আয়োজন করে বারবার নিজেকে আলোচনায় রেখে আসছিলেন। কোন কোন ক্ষেত্রে বিপুল অর্থ ব্যয় করে অনুষ্ঠান আয়োজনে খবরের শিরোনামও হন। সর্বশেষ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর শেষ অনুষ্ঠানে বিপুল অর্থ ব্যয় করে তার সেই আয়োজনে তাক লাগিয়ে দেন। এর আগে দুটি ঈদে ঢাকাফেরত বরিশালবাসীকে ঘরে পৌঁছে দিতে তার অনুসারীদের নিয়ে যে ভুমিকা রেখেছিলেন। অথচ করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্ব ছাপিয়ে বাংলাদেশ তথা বরিশালে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দিলে সর্বপ্রথম যার ভুমিকা রাখার কথা সেই সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ অর্ন্তধানে চলে যান। এমনকি মহানগরতো দূরের কথা জেলা আ’লীগের কর্ণধর মন্ত্রী পদমর্যাদার নেতা আব্দুল হাসানাত আব্দুল্লাহ বরিশাল পরিস্থিতি নিয়ে কোন ভুমিকায় নেই। সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী করোনাভাইরাস নিয়ে বরিশালে এ পর্যন্ত যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাতে সর্বপ্রথম ক্ষমতাসীন মহলের মাঠে থাকা বাঞ্ছনীয় ছিল। কারও কারও অভিমত করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গণসচেতনতা তৈরি ও নগরবাসীর মাঝে সুরক্ষা উপকরণ মাস্ক বিতরণ এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে আ’লীগের নেতাকর্মীদের সেচ্ছাসেবকের ভুমিকায় অবতীর্ণ হওয়ার প্রত্যাশ ছিল অনেকের। কিন্তু গোটা চিত্রই যেন বিপরিত। আ’লীগ যেখানে মাঠে নেই, সেখানে বাসদের মতো ছোট আকারের একটি রাজনৈতিক দল যেভাবে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাঠে নেমেছে তা প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি বলে মনে করছেন সুশীল সমাজ। এই দলটির স্থানীয় নেত্রী ডা. মণীষা চক্রবর্তী নিজ উদ্যোগে গোটা শহরের মাইকিং, লিফলেট ও মাস্ক বিতরণসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তার অনুসারীদের নিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে গণসচেতনতার সৃষ্টির প্রাণান্তকর চেষ্টা করতে দেখা যায়। পিছিয়ে নেই বৃহত্তর রাজনৈতিক বিএনপিও। এই দলটির শীর্ষ নেতাদের মজিবর রহমান ও এবায়দুল হক চাঁনসহ তাদের কর্মীরা মাঠে নেমে লিফলেট বিতরণ করে নগরবাসীর সুরক্ষার উপায় বাতলে দিচ্ছেন। একমাত্র আ’লীগ ঘরনার মধ্যে মহানগর আ’লীগ নেতা মাহামুদুল হক খান মামুন শহরসহ সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়নে লিফলেট বিতরণসহ সুরক্ষা উপকরণ যথসামান্য পৌঁছে দিতে দেখা যায়। সূত্র জানায়- এক্ষেত্রে পিছনে থেকে সদর আসনের সাংসদ পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) জাহিদ ফারুক শামীম এই নেতাকে মাঠে নামিয়েছেন। সাথে জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নানামুখী উদ্যোগ নিয়ে নগরবাসীকে আতঙ্কমুক্ত রাখার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এবং সুরক্ষার নির্দেশনা দিচ্ছেন।

গত সাত দিন ধরে বরিশাল পরিস্থিতি ভীতিকর রুপ নেয়। যদিও এই জেলায় করোনাভাইরাস আক্রান্তের কোন সংখ্যা নেই। তবে সন্দেহজনক বেশ কয়েকজনকে শেবাচিমের করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভুমিকা এখন পর্যন্ত ইতিবাচক বা প্রসংশিত। বিশেষ করে বিদেশফেরত প্রবাসীদের আগমন বা অবস্থানের খবর পেলেই পুলিশ প্রশাসনকে সেই ব্যক্তি হন্যে হয়ে খুঁজতে দেখা গেছে। এই ধরনের উদ্যোগের ফলে হোম কোয়ারেন্টিন সোমবার দুপুর পর্যন্ত ২ হাজার ২৩০ জন অবস্থান নিতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু মূল বিষয় করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত থাকার উপায় উপকরণ সামগ্রী প্রকট সংকট মোকাবিলায় নগরবাসী হিমশিম খাচ্ছে। এই অবস্থায় নগরবাসীর প্রত্যাশা ক্ষমতাসীন মহল মাঠে নামলে এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া অনেকটা সহায়ক হতো। এক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশনের ভুমিকা থাকার কথা ছিল। কিন্তু নগরবাসীর দেখভাল করার অর্পিত দায়িত্ব সিটি কর্পোরেশনের কোন ভুমিকাতো নেই। উপরন্ত মেয়রকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে করোনাভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহকে নিয়ে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

দায়িত্বের আলোকে এমন পরিস্থিতিতে সিটি মেয়রের ভুমিকা থাকার কথা ছিল সর্বাগ্রে বেশি। তিনি মাঠে না থাকলেও তার অনুসারী বা দলীয় কর্মী-সমর্থকদের দিক নির্দেশনা দিয়ে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় শহরবাসীর পাশে থেকে উপায় বাতলে দেওয়া সমীচীন ছিল, মন্তব্য সচেতন মহলের।

সার্বিক বাস্তবতা বলছে- করোনাভাইরাস আতঙ্ক যেন ক্ষমতাসীন মহলকে বেশি পেয়ে বসেছে, হয়েছে আতঙ্কিত। নচেৎ মুজিবের জন্মশতবর্ষের শেষ অনুষ্ঠানে আতোশবাজিতে বরিশালের আকাশ নানা রঙে রঙিন করার পর দিন থেকেই ক্ষমতাসীন মহলের শীর্ষ নেতাদের আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। শীর্ষ সারির নেতাদের কাউকেই গত কয়েকদিনে বরিশালের সড়কে চলাচল বা তাদের কার্যালয়ে দেখা মেলেনি। ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের ২/১ জন বাদে অন্যরা ঘরে উঠে গেছেন। বিতর্ক এখন আ’লীগ নেতা ও সিটি মেয়রকে নিয়েই। মুজিবের জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানের পরদিন তিনি অনেকটা অর্ন্তধান রয়েছেন। কোথায় আছেন এই নেতা খোদ তার অনুসারী বা সহচররা নিশ্চিত করতে পারছেন না। কালিবাড়ি সড়কে তার বাসভবনের সামনে নেই কোন ভিড়। অনেকের ধারণা ছিল তিনি ঢাকায়। কিন্তু সত্য কী আর গোপন থাকে?

এক কান দু’ কান হয়ে জানাজানি হয়ে গেছে সাদিক আব্দুল্লাহ বরিশালেই রয়েছেন। তিনি বেশ কয়েকদিন অভিজাত বরিশাল ক্লাবের একটি কক্ষে একাকী অবস্থান করেন। বিষয়টি ছিল অনেকেরই অজানা, এমনকি ক্লাব কর্মচারীরাও ছিল না।

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়- গত দুদিন ধরে মেয়র ক্লাব ছেড়ে তার বাসভবনে ফিরেছে অত্যান্ত সঙ্গোপনে। গভীর রাতে গাড়িতে চেপে প্রবেশের পর তার বাড়িটি যেন ‘লকডাউনে’ পরিণত হয়েছে। সেখানে নেতাকর্মীদের প্রবেশের কোন অনুমতি নেই। একমাত্র শ্যালক ও সিটি মেয়রের একান্ত সহকারি মোস্তাফিজুর রহমান মিলন ব্যতিত ওই বাড়িতে আর কাউকে প্রবেশ করতে দেখা যাচ্ছে না। এমনকি তার বিশ্বস্ত সহচর নিরব হোসেন টুটুলকে ওই বাড়িতে দেখা যাচ্ছে না। সেখানকার পুলিশ প্রটকলও সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

অপর একটি সূত্র জানায়- মেয়র তার বেশ কয়েকজন ঘনিষ্ঠজন যারা কী না ওই বাড়িতে দেখভালের বা সাংগঠনিক কাজের দায়িত্বে থাকেন তাদের নিজ নিজ বাড়িতে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে নিশ্চিত করেছেন তিনি বরিশালেই আছেন, সময় মতো সকলকে ডাকবেন।

আ’লীগ ও মেয়রের এই অর্ন্তধান রহস্য এখন করোনাভাইরাস আতঙ্কের মধ্যে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি করেছে। কথা উঠেছে- বাসদের তরুণ নেত্রী ডা. মণীষা চক্রবর্তী যদি এ দুর্যোগ মোকাবিলায় মাঠে থাকতে পারেন তাহলে সাদিক আব্দুল্লাহ অনপুস্থিতি বড়ই বেমানান। নগরবাসীর সুরক্ষা দেবে কী? নিজেকে রক্ষায় মেয়র ঘরবন্দি হয়েছেন এমন মন্তব্য করে একটি মহল জানায়- সাদিক আব্দুল্লাহ নিজেই এখন করোনা আতঙ্কে ভুগছেন।

বাসদ নেত্রী মণীষা চক্রবর্তী বরিশালটাইমসকে জানান, তাদের কর্মসূচি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত অব্যাহত রাখবেন। ফলে এই নারী নেত্রীর রাজনীতির কাছে মেয়র সাদিক ধরাশয়ী হলেন করোনা ইস্যুতে। এটা নিয়ে এখন বরিশালে সর্বাগ্রে আলোচনা। বিতর্কের বাইরে নেই, সাদিক আব্দুল্লাহ’র পিতাও। জেলা আ’লীগের কান্ডারি আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ করোনাভাইরাস নিয়ে উৎকণ্ঠিত বরিশালে পা ফেলছেন না।

তবে জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস সাংবাদিকদের জানান, কর্মীরা সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষের সাথে সংযুক্ত রয়েছেন। আলাদা কোন কর্মসূচি নেওয়ার প্রয়োজন নেই। বরিশালে সরকারি নির্দেশনায় দলীয় কর্মকান্ড কোথায় এ প্রশ্নে উত্তর দিতে পারেননি বর্ষীয়াণ এই নেতা। ফলে তার এমন মন্তব্যে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।’

বরিশালের খবর

আপনার মতামত লিখুন :

 
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  এইচএসসি-সমমানের ফল ৮ ফেব্রুয়ারি  বাবুগঞ্জে তোরাব আলীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলন  পেরুতে বাস খাতে পড়ে নিহত ২৪  চরফ্যাশনে উদ্ধার লাশের পরিচয় মিলল ফেসবুকে  ২৮ বছরের পুত্রবধূকে বিয়ে করলেন ৭০ বছরের শ্বশুর  প্রধানমন্ত্রীর আগমণের অপেক্ষায় রাজশাহীবাসী  ‘বঙ্গবন্ধু আজীবন সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছেন’  শতাধিক কুরআনে হাফেজকে পুরস্কৃত করলেন সাবেক এমপি বদি  শতাধিক কুরআনে হাফেজকে পুরস্কৃত করলেন সাবেক এমপি বদি  নাশকতার উদ্দেশ্যে গোপন বৈঠক: জামায়াতের ১৫ নেতাকর্মী আটক