১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

করোনা নেগেটিভ, গ্রামে ঢুকতে না পেরে গাড়িতেই কোয়ারেন্টাইন

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:৫৬ অপরাহ্ণ, ২৭ মে ২০২০

বার্তা পরিবেশক, অনলাইন :: করোনাভাইরাসে নেগেটিভ হওয়ার পরও নিজ গ্রামে ঢুকতে পারলেন না এক যুবক। বাধ্য হয়ে নিজের গাড়িতেই ফের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বাধ্য হলেন ওড়িশার এই যুবক।
পেশায় তিনি একজন চিত্রগ্রাহক। পেশাগত কাজে গত ৩ মে বিহারে গিয়েছিলেন ওড়িশার গঞ্জাম জেলার বেরহামপুর শহরের বাসিন্দা মাধব পাত্র। শহরে ফিরে আসার পরে নমুনা পরীক্ষা নেগেটিভ হন এবং সরকারি নির্দেশে নিজের আবাসনে তিনি ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকেন। ফের পরীক্ষা হলেও তার নেগেটিভই আসে।

এরপর তিনি গত মঙ্গলবার সানাখেমুন্ডি ব্লকে নিজের গ্রাম ডোলাবায় যান। কিন্তু গ্রামে প্রবেশ করার খবর ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র বিক্ষোভ শুরু হয়। স্থানীয়রা তাকে গ্রামের সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকার জন্য বাধ্য করে।

বার বার গ্রামবাসীদের নিজের করোনা নেগেটিভ হওয়ার সনদ এবং আগের ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা জানিয়েও লাভ হয়নি। পুলিশ এসেও গ্রামের বাসিন্দাদের বোঝাতে ব্যর্থ হন।
গ্রামবাসীরা নির্দেশ, মাধবকে গ্রামের বাইরে সরকারি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারেই ১৪ দিন থাকতে হবে।

এদিকে সরকারি সেন্টারে সেই সময় বেশ কয়েকজন পরিযায়ী শ্রমিক কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। সেখানে থাকতে গেলে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি প্রবল জেনে মাধব প্রস্তাব দেন, সেন্টারে নয়, গ্রামের বাইরে নিজের গাড়িতেই ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন পর্ব পালন করবেন। তার প্রস্তাবে রাজি হন গ্রামবাসী।

হতাশ মাধবের প্রশ্ন, ‘কোভিড পরীক্ষার ফল নেগেটিভ পাওয়া গিয়েছে। এর আগে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থেকে এসেছি। তার পরেও কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে, এই যুক্তি হাস্যকর। সরকারি সেন্টারে থাকলে উল্টো সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যাবে। তাই নিজের গাড়িতেই এই কয়েক দিন থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’
এই বিষয়ে সানাখেমুন্ডির বিডিও গায়ত্রী দত্ত নায়েক জানিয়েছেন, বুধবার ২৭ মে মাধব পাত্রর দ্বিতীয় কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ সম্পূর্ণ হবে। এরপর তিনি গ্রামে প্রবেশ করতে পারবেন।

14 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন