১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

ঘুষ নিয়ে ৩ কোটি টাকার সাপ ছেড়ে দিল পুলিশ!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:৪৯ অপরাহ্ণ, ২১ জুন ২০১৬

ঝাকাঠি: রাজাপুরে ৩ কোটি মূল্যের ৩ টক্কর সাপের চালানসহ ৫ জনকে ছেড়ে দিয়ে ২ লাখ টাকা ঘুষ গ্রহনের দায়ে রাজাপুর থানার এসআই আব্দুল কাইউমকে ক্লোজড করা হয়েছে। গত শনিবার রাত সাড়ে ৯ টায় রাজাপুর ডিগ্রি কলেজের এলাকার এ ঘটনায় অভিযুক্ত এসআই আব্দুল কাইউমকে সোমবার ক্লোজড করে ঝালকাঠি পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে। ক্লোজডের বিষয়টি নিশ্চিত করে ঘুষ গ্রহণের বিষয়টি স্বীকার করে ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব জানান, এমন অভিযোগের ভিত্তিতে এসআই কইউমকে ঝালকাঠিতে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। ওসিসহ অন্যকেহ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 
নাম প্রকাশ না করার শর্তে রাজাপুর থানার ২জন পুলিশ সদস্য ও এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গত শনিবার রাত সাড়ে ৯ টায় রাজাপুর ডিগ্রি কলেজের এলাকার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙ্গামাটির পাহাড়ি ৩ টক্কর সাপসহ ৫ জনকে আটক করে এসআই কাইউম ও এসআই চাঁন মিয়াসহ একদল পুলিশ। পরে এসআই আব্দুল কাইউম ৫ জন থেকে ২ জনকে থানায় নিয়ে আসে। পরে রাজাপুর পরিদর্শক (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াস ২ লাখ টাকায় রফাদফা করে তাদের ছেড়ে দেয়। তাদের কাউখালি থানা পুলিশ ডাকাত সন্দেহে আটক করলে তারা ডাকাত না বলে এ ঘটনা বলে কাউখালি থানা পুলিশকে বলে এবং এসআই কাইউমকে স্বাক্ষী মানে। পরে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। পরিদর্শক (ওসি) শেখ মুনির উল গীয়াসের বিরুদ্ধে অভিযোগের শেষ নেই। গুষ দিলে সকল কাজই সম্ভব হয় তার দ্বারা এমন কথা প্রচলিত রয়েছে।

 

রাজাপুরের বড়ইয়া ইউনিয়নের কলেজ ছাত্র হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলায় আসামীদের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহন করে বাদীকে হয়রানীর অভিযোগ রয়েছে। ঘুষ না পেয়ে এক নিরিহ প্রবাসীর পুলিশ কিøয়ারেন্স ৬ মাসেও দেয়নি ওসি গিয়াস। যে ক্লিয়ারেন্স ২/৩ দিনের মধ্যে দেয়ার কথা ছিলা। নানা অপকর্ম করার পরও উর্ধতন এক কর্মকর্তার দোহাই দিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছেন বার বার।

 
এছাড়াও এসআই আব্দুল কাইউমের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে সখ্যতা, আটক মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ঘুষ নিয়ে ছেড়ে দেয়া ও শিশু ছাত্রকে ধান খেতে ফেলে পদদলনকারীর কাছ থেকে মোটা অঙ্কের ঘুষ গ্রহণ করে ছেড়ে দেয়া, বিশ^াসবাড়ির একটি ডাকাতির ঘটনার সিম উদ্ধারের ঘটনায় ১০ হাজার টাকা ঘুষ খেয়ে আসামী ছেড়ে দেয়া, বামনকাঠি গ্রামের ধর্ষণ চেস্টার ঘটনায় মামলা করতে এলে তাদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহনসহ নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

5 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন