১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

ছদ্মবেশে দুদক কর্মকর্তা, দালাল নিজেই এসে হাজির

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৭:০০ অপরাহ্ণ, ১২ নভেম্বর ২০১৯

বার্তা পরিবেশক, অনলাইন::: দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ইনফোর্সমেন্ট ইউনিট আজ (মঙ্গলবার) রাজধানীসহ সারাদেশে ৫টি অভিযান পরিচালনা করেছে।

বাংলাদেশ রুট ট্রান্সর্পোট অথরিটি (বিআরটিএ) মিরপুর কার্যালয়ে বাসের রুট পারমিট নবায়ন করানোয় অনিয়মের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. সাইদুজ্জামানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানকালে দুদক টিম বিআরটিএ অফিসে একজন বহিরাগত ব্যক্তিকে অফিসের সিল ব্যবহার এবং প্রাপ্তিস্বীকার রশিদে রুট পারমিট গ্রহণের সময় বৃদ্ধি সংক্রান্ত তারিখ লিপিবদ্ধ করা অবস্থায় পায়।

তিনি ছদ্মবেশে অভিযানরত দুদক টিমের গাড়িতেও রুট পারমিট বৃদ্ধি করিয়ে দেয়ার কথা বলে দালালির চেষ্টা চালান। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিআরটিএ কর্তৃপক্ষের নিকট সোপর্দ করে দুদক টিম। এছাড়া বহিরাগত ব্যক্তিকে দাপ্তরিক সিল ব্যবহারের সুযোগ করে দেয়ার বিষয়ে বিআরটিএ, ঢাকা বিভাগের এক উচ্চমান সহকারীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ।

বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নানাবিধ অনিয়মের অভিযোগে বরিশাল জেলা কার্যালয় থেকে আজ একটি এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালিত হয়। সরেজমিন অভিযানে টিম হাসপাতাল থেকে রোগীদের নিম্নমানের খাবার সরবরাহ করার প্রাথমিক প্রমাণ পায়। এছাড়া রান্নাঘরের পরিবেশ অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় পাওয়া যায়।

হাসপাতালে পরিলক্ষিত অব্যবস্থাপনাসমূহ দূরীকরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণপূর্বক কমিশনকে অবহিত করার জন্য শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ, বরিশালের পরিচালককে অনুরোধ করে দুদক টিম। হাসপাতাল মেরামতের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাতের অপর একটি অভিযোগে সিভিল সার্জনের কার্যালয়, বরিশালে এ অভিযান পরিচালনা করেছে একই টিম।

এছাড়াও কুড়িগ্রামে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর থেকে সেলাই প্রশিক্ষণের টাকা প্রদান না করে আত্মসাতের অভিযোগে এবং রাস্তা নির্মাণে নিম্ননের সামগ্রী ব্যবহার ও দুর্নীতির অভিযোগে সমন্বিত জেলা কার্যালয়, রংপুর থেকে ২টি পৃথক এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

10 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন