১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

তুষারকে মারধরের ঘটনায় বিক্ষোভ

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৪:৪৩ অপরাহ্ণ, ২১ নভেম্বর ২০১৬

বরিশাল: ইভটিজিংয়ের অভিযোগ এনে অনার্স ৪র্থ বর্ষের ছাত্র তুষারকে মারধরের ঘটনায় বরিশাল সরকারী ব্রজমোহন কলেজে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগের একাংশ এবং সহপাঠিরা।

আজ সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিলটি কলেজের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়। এসময় ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা এবং তুষারের সহপাঠিরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে।

কলেজ ছাত্রলীগ নেতা ও বাকসুর সাহিত্য সম্পাদক নূর আল আহাদ সাইদী জানান, কলেজের শিক্ষার্থীদের বহিরাগতরা এসে মারধর করবে, এটা মেনে নেয়া যায়না। বহিরাগতদের হামলায় কলেজের একজন শিক্ষার্থী গুরুত্বর আহত হবে, এটা কিভাবে সম্ভব। তাই আমরা হামলাকারীদের বিচারের জন্য নেমেছি।

এদিকে তাদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেন বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক রেজভী আহম্মেদ রাজা রাঢ়ী।

এ বিষয়ে হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত কলেজ ছাত্রলীগ নেতা ও মার্কেটিং বিভাগের ছাত্র আব্দুল্লাহ্ আল নোমান জানিয়েছেন, আমার বান্ধবী জেবাকে ইভটিজিং করায় তুষারকে মারধর করা হয়েছে। তবে সে গুরুত্বর আহত নয়। কলেজের পরিস্থিতি গরম রাখার জন্য তুষার এয়ার এ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে ঢাকায় ভর্তি হয়েছে। কিন্তু ঢাকায় ভর্তি হওয়ার মত কিছুই হয়নি।

নোমান জানিয়েছে, বিষয়টি ইভটিজিং নিয়ে হলেও সেটিকে এখন রাজনৈতিক খাতে প্রবাহিত করছে একটি চক্র।

উল্লেখ্য, রবিবার বেলা সারে ১২ টার দিকে কলেজের জীবনানন্দ দাশ মঞ্চে ইভটিজিংয়ের অভিযোগ এনে কলেজের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র তুষারকে এলোপাথারি পিটিয়ে আহত করে কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল নোমান এবং তার অনুসারীরা। এ ঘটনায় তুষারকে উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকালে তুষারকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়।

এঘটনা রাজনৈতিক খাতে প্রবাহিত হওয়ায় কলেজ ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এছাড়া কলেজের সাংস্কৃতিক সংগঠন উত্তরনের নবীন বরণ অনুষ্ঠান আয়োজিত হলেও রাজনৈতিক নেতাদের চাপে অনুষ্ঠান মাঝ পথে স্থগিত করা হয় বলে জানা গেছে। তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন সংগঠনের সভাপতি রোকন বেপারী।

 

10 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন