২২শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার পথে সমুদ্রে নিখোঁজ বাঙালি ইঞ্জিনিয়ার

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:৩৬ অপরাহ্ণ, ২১ জুন ২০২০

বার্তা পরিবেশক, অনলাইন :: করোনা ভাইরাসের এই প্রবল দাপটে দক্ষিণ কলকাতার বাঁশদ্রোণীর বাড়িটিতে এখন চলেছে অরন্ধনের পালা ৷ না, এই বাড়িতে কেউ করোনা আক্রান্ত হয়নি ৷ ছিমছাম এই বাড়ির বাসিন্দা মেরিন ইঞ্জিনিয়ার সম্বিত মজুমদার রহস্যজনক ভাবে মাঝদরিয়া থেকে নিখোঁজ হয়ে গেছেন সিঙ্গাপুর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার ডায়সন বন্দরে যাওয়ার পথে অপরিশোধিত তেলবোঝাই একটি জাহাজ থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে গেছেন বাঙালি ইঞ্জিনিয়ার। সম্বিত মজুমদার (৫০) নামে ওই ইঞ্জিনিয়ারের পরিবার থাকে ভারতের কলকাতার বাঁশদ্রোণী নামক এলাকায়।
ভারতের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, পঁচিশ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন সম্বিত ছিলেন লাইবেরিয়ায় জাহাজ এমটি সেরেঙ্গেটির সেকেন্ড ইঞ্জিনিয়ার। বর্তমানে জাহাজটি রয়েছে দক্ষিণ চীন সাগরে। সমুদ্রের মাঝে একটি জাহাজ থেকে কিভাবে তার সেকেন্ড ইঞ্জিনিয়ার নিখোঁজ হয়ে গেল তা ভেবে পাচ্ছে না পরিবার। তারা এখন জাহাজের কর্মীদের দায়ী করছেন।

জাহাজের ক্রুদের দাবি, বুধবার তারা সম্বিতকে কেবিনে দেখেছেন। কিন্তু সকাল ১০টায় তার কোনো খবর না মেলায় জাহাজে অ্যালার্ট করে দেওয়া হয়। তার ফোনটি কেবিনে থাকলেও সম্বিতের কোনো খোঁজ মেলেনি।

সম্বিতের স্ত্রী জয়িতা বলেন, গত ৪ ফেবব্রুয়ারি কলকাতা ছাড়েন সম্বিত। ২৩ জুন তার তেল নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার ডায়সান বন্দরে পৌঁছানোর কথা। কিন্তু মাঝ সমুদ্র থেকে কিভাবে একজন নিখোঁজ হয়ে যেতে পারেন! তাদের কাছ থেকে আমি একটা লিখিত বিবৃতি চেয়েছিলাম। ফোনে জাহাজের কারো সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলাম কিন্তু জাহাজ থেকে কোনো সাহায্য করা হয়নি।

নিয়ম অনুযায়ী এরকম ঘটনায় দক্ষিণ কোরিয়ার ওই বন্দরে জাহাজ পৌঁছলে জাহাজের সবাইকে আটক করে জেরা করার কথা। জয়িতা জানিয়েছেন, জাহাজে ৪ মাসের কাজের চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ার পরও সম্বিত কাজ করছিলেন কারণ দেশে ফেরার ক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধ ছিল। সিঙ্গাপুর থেকে জাহাজ ছাড়ার সময়ে জানিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া যাচ্ছে জাহাজ।

5 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন