২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

দশম শ্রেণির ছাত্রীকে সেভ হোমে দিলো পুলিশ: অপহরণের অভিযোগ পরিবারের

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৫:৪৭ অপরাহ্ণ, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ঝালকাঠির দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে সেভ হোমে পাঠিয়েছে পুলিশ। তবে মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ তাকে অপহরণ করা হয়েছিলো। পুলিশের দাবী, মেয়েটি স্বেচ্ছায় প্রেমের কারণে পালিয়েছিলো।ঝালকাঠি সদর উপজেলার বিনয়কাঠি ইউনিয়নের খাগুটিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

ছাত্রীটির মা আনোয়ারা বেগম সাংবাদিকদের জানান, সদর উপজেলার বিনয়কাঠি ইউনিয়নের খাগুটিয়া গ্রামের মো. আব্দুর রহমান হাওলাদারের মেয়ে এবং স্থানীয় হাজেরা খাতুন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সুখি আক্তার।
গত ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে স্কুলে যায় সে। কিন্তু স্কুল ছুটির ঘন্টাখানেক অতিবাহিত হলেও বাড়ি ফিরে না আসায় হতাশ হয়ে এদিক সেদিক খোঁজাখুঁজি করেন। পরে সদর থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন তিনি (ছাত্রীর মা আনোয়ারা বেগম)।

অপহরণের লিখিত অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয় বরিশাল এয়ারপোর্ট থানার ২৭ নং ডেফুলিয়া ওয়ার্ডের সাইফুল ইসলাম রায়হান, তার বাবা আমির আলী মোল্লা, মা সুফিয়া বেগম এবং বিনয়কাঠি এলাকার মো. জামাল খলিফা ও তার স্ত্রী রুমা বেগমকে।

তিনি আরও জানান, অভিযোগের পর পুলিশের চাপে শুক্রবার বিকেলে মেয়েটিকে থানায় নিয়ে আসেন সাইফুল ইসলাম রায়হানের মা সুফিয়া বেগম। পুলিশ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতে থানা পুলিশ এক মহিলা কনস্টেবলের হেফাজতে রেখে শনিবার সকালে বরিশাল সেভ হোমে পাঠায়।

মা আনোয়ারা বেগম অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে ৩ দিন আটকে রেখে পুলিশের চাপে থানায় এসে হাজির করা হয়েছে। মেয়ে উদ্ধার হলেও অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে কোন আইনী ব্যবস্থা না নিয়ে পুলিশ উল্টো মেয়েকে সেভ হোমে পাঠিয়েছে।

এ ব্যপারে সদর থানার পরিদর্শক (ওসি প্রশাসন) মো. তাজুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মেয়েটি ওই ছেলেটির সাথে আরও তিনবার পালিয়ে ছিলো। এটা প্রেমের বিষয়, অপহরণ নয়। মেয়েটি অপহরণ হয়নি মর্মে লিখিতও দিয়েছে। তাই আমরা মেয়েটিকে সেভ হোমে পাঠিয়েছি। পরবর্তী বিষয় আদালত সিদ্ধান্ত নেবে, বলেন পরিদর্শক তাজুল ইসলাম।
#

8 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন