২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

নিখোঁজের ১৮ ঘন্টা পর মাদ্রাসাছাত্রীর লাশ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৪

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৯:১৪ অপরাহ্ণ, ০৮ জুলাই ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:: বরিশালের বানারীপাড়ায় বাড়ি থেকে বের হয়ে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজের ১৮ ঘন্টা পরে শরীরে পাথর ও ইট বাধা অবস্থায় খাল থেকে মাদ্রাসাছাত্রী আয়শার (১২) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (৮ জুলাই) উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের আউয়ার গ্রামের একটি খাল থেকে ওই শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত শিক্ষার্থী আয়শা ওই গ্রামের দুলাল লাহারির মেয়ে এবং আউয়ার ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

এদিকে ঘটনায় হত্যার অভিযোগে পুলিশ স্থানীয় একটি পরিবারের ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। তারা হলো- আউয়ার গ্রামের সিদ্দিক মীরা (৪০), তার স্ত্রী হনুফা বেগম (৩০), তাদের ছেলে সাব্বির (২০) ও সাইদ (১৪)।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার (৭ জুলাই) সকাল ১১টার দিকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে শিক্ষার্থী আয়শা রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়। তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে স্বজনরা এলাকায় মাইকিং ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছবি দিয়ে নিখোঁজ বিজ্ঞপ্তি দেয়। কিন্তু তাতেও তার কোন সন্ধান মেলেনি।

নিহত আয়শার স্বজনরা জানান, নিখোঁজের পরেরদিন বুধবার সকালে পরিবারের লোকজন পুন:রায় বাড়ির আশপাশের এলাকাগুলোতে শিক্ষার্থী আয়েশাকে খুঁজতে বের হয়। একপর্যায়ে ওই শিক্ষার্থীদের বাড়ির পার্শ্ববর্তী সিদ্দিক মীরার ঘরের পাশে আয়শার একটি জুতা পাওয়া যায়। এ বিষয়টি ওই শিক্ষার্থীর পরিবার স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম কাজলকে জানায়। পরে ইউপি সদস্যসহ এলাকার অন্যান্য লোকজন সিদ্দিক মীরা, তার স্ত্রী হনুফা বেগম, তাদের ছেলে সাব্বির ও সাইদকে সৈয়দকাঠি ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

তারা আরও জানান, ইউনিয়ন পরিষদে জিজ্ঞাসাবাদে সিদ্দিক মীরা ও তার পরিবারের লোকজন জানায় শিক্ষার্থী আয়শাকে হত্যা করে তারা লাশ বাড়ি সংলগ্ন খালে ডুবিয়ে দিয়েছে। এ সময় থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যানুযায়ী খালের মধ্যে বানারীপাড়া ও বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল দিনভর
তল্লাশি চালিয়ে বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে আয়েশার লাশ উদ্ধার করে।

বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল বরিশালটাইমসকে জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা ওই ছাত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করলেও কেন হত্যা করেছে তা জানতে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে।

ওসি আরও জানান, ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। একই সাথে এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতিও চলছে।

2 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন