৬ িনিট আগের আপডেট সন্ধ্যা ৬:৪০ ; রবিবার ; ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে ২০ গ্রাম প্লাবিত, ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি

বরিশালটাইমস রিপোর্ট
১২:২৮ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০১৭

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ এবং জোয়ারের প্রভাবে পায়রা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বরগুনার আমতলীর বালিয়াতলী ও তালতলী উপজেলার তেতুল বাড়িয়া গ্রামের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে দুই উপজেলার ২০ গ্রাম প্লাবিত হয়ে প্রায় ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এছাড়া বুধবার, বৃহস্পতি ও শুক্রবারের লাগাতার বর্ষণে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। গত মঙ্গলবার থেকে বঙ্গোপসাগরে নিন্মচাপ সৃষ্টি হওয়ায় এবং ৩ নম্বর বিপদ সঙ্কেতের কারণে সাগর উত্তাল হয়ে ওঠে।

এর ফলে আমতলী ও তালতলীর পায়রা নদীতে বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবার ব্যাপক হারে পানি বৃদ্ধি পায়। শুক্রবার পায়রা নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ২২ সেন্টিমিটার বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয় বলে নদীর পানি মাপক আবুল কালাম আজাদ জানান। পানির তোড়ে আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বালিয়াতলী গ্রামের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ৫০ মিটার ভেঙে শুক্রবার সকালে পানি প্রবেশ করে বালিয়াতলী, পশুরবুনিয়া ও গোফখালী গ্রাম প্লাবিত হয়।

এছাড়া তেতুল বাড়িয়া গ্রামের ১শ’ মিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে বৃহস্পতিবার রাতে নদীর পানি ঢুকে তেতুল বাড়িয়া, নলবুনিয়া, আগাপাড়া, মরানিন্দ্রা, সুবাহানপাড়া, মেনিপাড়া ও খোট্টার চর প্লাবিত হয়।

পানি ঢুকে এ সকল গ্রামের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। তলিয়ে গেছে ঘের ও পুকুর। বালিয়াতলী গ্রামে চাষী নিজাম উদ্দিন এবং তেতুল বাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা নুরু সিকদার জানান, বাঁধ ভেঙে জোয়ারের পানিতে শতাধিক পুকুর তলিয়ে মাছ ভেসে গেছে।

নিশান বাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দুলাল ফরাজী বরিশালটাইমসকে জানান, তেতুল বাড়িয়া গ্রামের বাঁধ ভেঙে পায়রা নদীর পানি প্রবেশ করে তার এলাকার ৭টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। পানির তোড়ে শতাধিক পুকুরের প্রায় কোটি টাকা মূল্যের মাছ ভেসে গেছে।

এতে মাছ চাষীরা সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে। পানি বৃদ্ধির ফলে বেড়ি বাঁধের বাইরে অবস্থিত তালতলীর আশার চর, জয়াল ভাঙা, আমতলীর লোছা, বটিয়াঘাটা, আমতলী ফেরিঘাট, শ্মশানঘাট, আঙ্গুলকাটা, কলাগাছিয়া, গুলিশাখালী জেলে পাড়াসহ ২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

নদী তীরবর্তী বসবাসরতদের বাড়ি ঘরে পানি প্রবেশ করায় শুক্রবার অনেকের বাড়িতেই দুপুরের রান্না হয়নি। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকের উপোস কাটাতে হয়েছে।

গুলিশাখালী জেলেপাড়ার খোদেজা বেগম বরিশালটাইমসকে জানান, দেহেন স্যার খালের পানিতে পানিতে আমাগো ঘড় বাড়ি সব তলাইয়া গেছে। চুলা নষ্ট হওয়ায় দুহারে রানতে পানি নাই।

একই এলাকার মজিবর বিশ্বাস বলেন, খালে অনেক পানি বাড়ছে।

পায়রা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আমতলী ও পুরাকাটা ফেরিঘাটের গ্যাংওয়ে তলিয়ে যাওয়ায় যাত্রীদের চলাচলে ভোগান্তি ছিল চরমে।

এছাড়া বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবারের লাগাতার ভারী বর্ষণে উপকূলের হাজার হাজার মানুষেল স্বাভাবিক জীবনযাত্রা অচল হয়ে পড়েছে। ক্ষেতের আমন ফসল এখন ২-৩ ফুট পানির নীচে রয়েছে।

অনেক জায়গায় আগাম উপসী আমনের শীষ আসায় সেগুলো অতি বৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন কৃষকরা।

পানি উন্নয় বোর্ডের আমতলী ও তালতলী উপজেলার দায়িত্বে নিয়োজিত উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. শাহ আলম বরিশালটাইমসকে জানান, বাঁধ ভাঙার খবর পেয়েছি।

বরগুনার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মশিউর রহমান বরিশালটাইমসকে জানান, আমতলীর বালিয়াতলী ও তালতলীর তেতুলবাড়িয়া বেড়ি বাঁধ ভেঙে পানি প্রবেশ করে গ্রাম তলিয়ে যাওয়ার খবর পেয়েছি। পানি নেমে যাওয়ার পর এগুলো দ্রুত মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হবে।”

 

বরগুনা

আপনার ত লিখুন :

 
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: barishaltimes@gmail.com, bslhasib@gmail.com
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  পটুয়াখালী পৌর ভোট: ৮ প্রার্থীকে জরিমানা  কলাপাড়ায় আইপিএম পদ্ধতিতে বেগুন উৎপাদনে কৃষক মাঠ দিবস  পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্রে প্রবেশ করায় একজনকে কারাদণ্ড ,২ শিক্ষককে অব্যাহতি  বিচার বিভাগকে ডিজিটালাইজেশন করা হবে: আইনমন্ত্রী  পটুয়াখালীতে ছাগলের মালিককে বেঁধে নির্যাতন: প্রধান অভিযুক্ত কারাগারে  সরকারের বেঁধে দেওয়া দাম মানছেন না মাংসবিক্রেতারা  নলছিটিতে ঘুমন্ত ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা, অভিযোগ স্ত্রী ও ছেলের বিরুদ্ধে  ঝালকাঠিতে পিতাকে পিটিয়ে হত্যা করলো ছেলে  কুয়াকাটায় ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খালে: পর্যটকসহ ভোগান্তিতে স্থানীয়রা  হারলেই বাদ, তামিমের বরিশাল কীভাবে পাড়ি দেবে কঠিন পথ