২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

বরিশালের ওপর দিয়ে ১২০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝড় বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:৫৯ অপরাহ্ণ, ০৯ নভেম্বর ২০১৯

বরিশালের ওপর দিয়ে ১২০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝড় বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা

বার্তা পরিবেশক, অনলাইন:: বাংলাদেশ থেকে মাত্র ২৮০ কি. মি. দূরে অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। শনিবার দুপুরে এ তথ্য জানায় আবহাওয়া অফিস। তারা বলেন, বর্তমানে ঘূর্ণিঝড়টি বুলবুল মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৮০ কি.মি. দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছে। আর পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১৫ কি.মি. দূরে অবস্থান করছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আজ সন্ধ্যা নাগাদ ঘূর্ণিঝড়টি খুলনার উপকূলীয় এলাকা ত্যাগ করবে। এরই মধ্যে দুর্যোগ মোকাবেলায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে সমুদ্রবন্দর, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় শনিবার দুপুর থেকে দমকা/ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

বুলবুল অতিক্রমকালে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা জেলা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর ইতোমধ্যে মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ০৭ (সাত) নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ (দশ) নম্বর (পুনঃ) ১০ (দশ) নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে।

উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ১০ (দশ) নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ০৬ (ছয়) নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ০৯ (নয়) নম্বর মহবিপদ সংকেত (পুনঃ) ০৯ (নয়) নম্বর মহবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহ ০৯ (নয়) নম্বর মহবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

৫-৭ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের সম্ভাবনা

ঘূর্ণিঝড় ও মুন ফেজের (চাঁদের শুক্লপক্ষ) প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫ থেকে ৭ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

17 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন