২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

বরিশালে ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলনের প্যান্ডেল ভেঙে দিল সিটি করপোরেশন

বরিশালটাইমস, ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

বরিশালে ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলনের প্যান্ডেল ভেঙে দিল সিটি করপোরেশন

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: বরিশাল বিভাগীয় ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলন নির্ধারিত স্থানে করতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) বিরুদ্ধে। আগামীকাল মঙ্গলবার নগরের বান্দ রোডের হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে স্থাপিত বিশাল প্যান্ডেল আজ সোমবার ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনার পর বাধ্য হয়ে নগরের আমানতগঞ্জ মাহমুদিয়া মাদ্রাসা মাঠে সম্মেলন করতে যাচ্ছেন আয়োজকরা। তাঁরা জানান, অনুমতি নেওয়ার পরও প্যান্ডেল ভেঙে ফেলায় তাঁদের ৫ লাখ টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে।

জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ এ সম্মেলন ও ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করেছে। এতে প্রধান অতিথি করা হয়েছে ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের মুহাদ্দিস মুফতি ইউসুফ তাওলভি ও মুফতি আফজাল কাইমুরি।

চরমোনাই পীর ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মো. রেজাউল করীমসহ তাঁর অনুসারী বিশিষ্ট আলেম-ওলামাকে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি করা হয়েছে। সম্মেলনের পুরো তত্ত্বাবধানে রয়েছেন ইসলামী আন্দোলনের স্থানীয় নেতারা। প্রতি বছরই চরমোনাই পীর অনুসারীদের তত্ত্বাবধানে বরিশালে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক মিজানুর রহমান আদিল জানান, সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে গত ৩০ জানুয়ারি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে সম্মেলনের অনুমতি চান। তখন মেয়র তাঁদের জানান, ইমাম সমিতির আপত্তি না থাকলে সম্মেলন করতে পারবেন।

মিজানুর রহমান জানান, ঈদগাহ মাঠের মালিক আছমত আলী খান ইনস্টিটিউশন (এ কে স্কুল) কর্তৃপক্ষের কাছে মাঠ ব্যবহারের লিখিত অনুমতি নিয়েছেন তাঁরা। গত বৃহস্পতিবার প্যান্ডেল তৈরির কাজ শুরু করেন।

সোমবার বিকেলের দিকে আকস্মিক সিটি করপোরেশনের লোকজন এসে প্যান্ডেল অপসারণ শুরু করেন। ঈদগাহ মাঠে সম্মেলন কেন করতে দেওয়া হবে না, তার কারণও জানায়নি বিসিসি।

সোমবার রাত ৮টায় ঈদগাহ মাঠে গিয়ে দেখা যায়, বিসিসি কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বিশাল প্যান্ডেলের বাঁশ অপসারণ করছেন শ্রমিকরা। এ প্রসঙ্গে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বরিশালের মুখপাত্র আবদুল্লাহ আল মামুন টিটু বলেন, এ বিষয়ে তাঁরা দলীয়ভাবে মুখ খুলবেন না।

সম্মেলন সম্পন্ন হওয়ার পর সব জানাবেন। দলের অন্য এক নেতা জানান, মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ হয়তো ধারণা করেছেন ওই সম্মেলনে মাহমুদিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা ওবাইদুর রহমান মাহবুবকে আসন্ন নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী ঘোষণা দেওয়া হবে। এ আতঙ্কে তিনি সেখানে সম্মেলন করতে দেননি।

ঈদগাহ মাঠে সম্মেলন প্যান্ডেল ভেঙে দেওয়ার কারণ জানতে বিসিসির প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্বপন কুমার রোহানকে একাধিকবার কল দেওয়া হলে তিনি রিসিভ করেননি। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফারুক হোসেনের ফোন বন্ধ ছিল। ১ নম্বর প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল ইসলাম লিটু বলেন, তিনি এ বিষয়ে কিছু জানেন না।

তথ্যসূত্র: সমকাল

 

22 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন