২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

বরিশালে দুটি ট্যাংকারে সংঘর্ষে কীর্তনখোলা ছড়িয়ে পড়ছে তেল

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:৫২ অপরাহ্ণ, ১৪ জুলাই ২০১৭

বরিশালের কীর্তনখোলা নদীর চরকাউয়া পয়েন্টে ফ্লাইএ্যাশবাহী জাহাজ ও তেলবাহি ট্যাংকারের সংঘর্ষে তেল ছড়িয়ে পড়েছে নদীতে। শুক্রবার (১৪ জুলাই) সকাল আটটায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে কি পরিমান ডিজেল নদীতে ছড়িয়ে পড়েছে তেল ওঠানোর আগ পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন দুর্ঘটনার শিকার ট্যাংকার এমটি ফজরের মাস্টার জামসেদুর রহমান।

মেঘনা গ্রুপের ফ্লাইএ্যাশবাজি কার্গো জাহাজ এমভি মা বাবার দোয়া-২ এর সুকানী মো. এরশাদ বলেন তারা ভারত থেকে মংলা বন্দর হয়ে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে  স্রোতের কারণে তেলবাহি ট্যাংকারের সাথে তাদের জাহাজের সংঘর্ষ হয়। এসময় নদী বন্দরে অবস্থান করা পারাবত-১২ লঞ্চের পেছনেও ধাক্কা লাগে।

দুর্ঘটনার শিকার ট্যাংকার এমটি ফজরের মাষ্টার জামসেদুর রহমান বলেন, তারা ঢাকা থেকে ডিজেল ও পেট্রোল নিয়ে বরিশাল যমুনা ডিপোতে আসছিলেন। তাদের ট্যাংকারে ৩ লাখ লিটার পেট্রোল ও সাড়ে ৯ লাখ লিটার ডিজেল ছিল।

কার্গো জাহাজ তাদের ট্যাংকারে সজোরে আঘাত হানলে ডিজেলের চেম্বারে আঘাত হানলে তা কীর্তনখোলা নদীতে ছড়িয়ে পড়ে। তারা দ্রুত ডিজেল অন্য চেম্বারে ছড়িয়ে নিয়েছেন।

তারপরও ক্ষতির পরিমাণ তেল ওঠানোর আগে কিছু বলতে পারছেন না তিনি।

কীর্তনখোলা নদীতে তেল ছড়িয়ে পড়ার পর স্থানীয় কয়ে’শ বাসিন্দা তেল উত্তোলন করেছেন নদী থেকে।

বান্দ রোডের বাসিন্দা হালিম ফকির জানিয়েছেন হালিম স্থানীয় জনতা প্রায় দুই শতাধিক ব্যারেল ডিজেল এ যাবৎ পর্যন্ত নদী থেকে উত্তোলন করেছেন।

এনিয়ে বিআইডব্লিউটিএর উদ্ধারকারী জাহাজ নির্ভিকের দায়িত্বে থাকা উপ পরিচালক মো রফিকুল সেলিম বলেন, খবর পাওয়ার পর তারা ঘটনাস্থলে আসেন।

দুর্ঘটনার শিকার দুটো জাহাজই তারা নিরাপদ স্থানে নোঙর করে রেখেছেন। তিনিও বলেন ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করে জানানো যাবে।”

 

9 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন