১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের পুকুরে ভাসছে সরকারি ওষুধ!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ, ১২ মে ২০১৭

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণির স্টাফ কোয়ার্টারের ৩নম্বর পুকুর থেকে বিপুল পরিমাণ সরকারি ওষুধ উদ্ধার করছে পুলিশ। শুক্রবার (১২ মে) সকালে)মেট্রোপলিটন কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ ওষুধগুলো উদ্ধার করে।

ওষুধগুলো সরকারি হলেও সেগুলো শেরে-ই বাংলা মেডিকেলের জন্য বরাদ্দ কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে পুলিশ এ ঘটনায় তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা জালাল আহম্মেদ কাজল বরিশালটাইমসকে জানান, সকালে স্টাফ কোয়ার্টারের ৩নম্বর পুকুরে বিপুল পরিমাণ সরকারি ওষুধ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ওষুধগুলো উদ্ধার করে।

বরিশাল শেবাচিমের সিনিয়র মেডিসিন স্টোর অফিসার ডা. মাহমুদ হাসান বরিশালটাইমসকে জানান, ওষুধগুলোর প্যাকেটের গায়ে লাল-সবুজ এর সরকারি রং রয়েছে এবং ওষুধগুলোর কোনটি ২০১৮ এবং কোনটি ২০১৯ সাল পর্যন্ত মেয়াদ রয়েছে। এ পর্যন্ত ১৩ ধরনের ওষুধ চিহ্নিত করা হয়েছে। এগুলো হলো- সেফট্রিয়াক্সোন ইনজেকশন, জেএমআই সিরিঞ্জ, ডেস্কামেটথাসন সোডিয়াম, লার্ব ৫০প্লাস, লুমনা-১০, ডমপেরিডন, ভ্যাসোপিস্ক, থিওফাইনিল, জ্যাসোকাইন জেল, ডাইক্লোফেন ইনজেকশন, এনক্লোগ প্লাস, সালবুটামল, এজিথ্রোমাইসিন ৫০০। তবে এগুলো শেরে-ই বাংলা মেডিকেলের জন্য বরাদ্দ দেয়া কিনা তা খতিয়ে দেখার কথা জানান তিনি। মেডিকেলের ওষুধের স্টোরে কোনো চুরির ঘটনা ঘটেনি বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালি মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু তাহের বরিশালটাইমসকে জানান, খবর পেয়ে মেডিকেলের কোয়ার্টারের একটি পুকুর থেকে বিপুল পরিমাণ সরকারি ওষুধ উদ্ধার করা হয়েছে।

মেডিকেল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে জানিয়েছে, শেরে-ই মেডিকেলের কোনো ওষুধ চুরি হয়নি। তারপর বিপুল পরিমাণ সরকারি ওষুধ কোথা থেকে কিংবা কারা পুকুরে ফেলেছে সেটি তদন্ত করবেন তারা। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান এসআই আবু তাহের।”

48 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন