২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

বরিশাল হাতেম আলী কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেফতার

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:০০ অপরাহ্ণ, ১২ জুলাই ২০১৭

বরিশাল নগরীর হাতেম আলী কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত অনুপম কর্মকারকে (২৬) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ধর্ষিতা ছাত্রী বাদী হয়ে মঙ্গলবার (১১ জুলাই) রাতে বরগুনার বামনা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দুই জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

বামনা থানা পুলিশ ধর্ষক অনুপম কর্মকারকে গ্রেফতার করে বুধবার আদালতের মাধ্যমে বরগুনা জেল হাজতে পাঠায়।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ধর্ষিতা কলেজছাত্রী বরিশাল সরকারী হাতেম আলী কলেজে ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাবা একজন দিনমজুর। তাদের এই অসহায়ত্ব এবং দারিদ্রতার সুযোগ নিয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী স্বর্ণ ব্যবসায়ি কালু কর্মকারের ছোট ছেলে অনুপম কর্মকার বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই কলেজছাত্রী ধর্ষণ করেন।

এমনকি ধর্ষিতার বাড়িতে একটি অনুষ্ঠানে ধর্ষক অনুপম কর্মকার তাকে হিন্দু বিবাহের প্রথা অনুযায়ী মিথ্যা সিঁদুর ও নাকফুল পড়িয়ে দেয়। এবং তাদের বিবাহ হয়ে গেছে দাবি করে তার সাথে অবৈধ সম্পর্ক স্থাপন করেন।

পরে গত ১ জুলাই ধর্ষিতাকে বরগুনা কোর্টে নিয়ে বিয়ে করার প্রলোভন দিয়ে তাকে বাড়ি থেকে নিয়ে বরগুনার উদ্দেশে রওয়না হয়। মাঝ পথে ওই ছাত্রীকে একা ফেলে ধর্ষক পালিয়ে যায়। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে ওই ছাত্রী তাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে ঘরে তুলে নেওয়ার প্রস্তাব দেন। এতে অভিযুক্ত অনুপম বেকে বসে এবং ধর্ষণের কথা অস্বীকার করেন।

কোন উপায়ান্ত না পেয়ে ধর্ষিতা ওই কলেজছাত্রী গত ১১ জুলাই মঙ্গলবার বামনা থানায় দুই জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে।

এই মামলার আরেক আসামী হলেন অনুপম কর্মকারের সহোযোগী মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের মিলন কর্মকার।

বামনা থানার ওসি মো. সাহাবুদ্দিন জানান, ধর্ষক অনুপম কর্মকারকে বরগুনা কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। এবং ভিকটিম সাথী রানীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বরগুনা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে নেয়া হয়েছে।”

 

 

28 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন