২৭ মিনিট আগের আপডেট সন্ধ্যা ৬:৪৪ ; বুধবার ; মার্চ ২৯, ২০২৩
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

বাউফল থানার এএসআই সুজন দেবনাথের ঘুষ দাবির অডিও ফাঁস 

বরিশালটাইমস, ডেস্ক
৩:৩৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২

বাউফল থানার এএসআই সুজন দেবনাথের ঘুষ দাবির অডিও ফাঁস 

মো. জসীম উদ্দিন, বাউফল (পটুয়াখালী)::  মাদক মামলার আসামী ! এই বলে নিরাপরাধ চার যুবকের কাছে ১৫ হাজার টাকা করে মোট ৬০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেছেন বাউফল থানার এএসআই সুজন দেবনাথ। আর এই ঘুষের  টাকার জন্য তিনি ওই যুবকদের বাড়ি পর্যন্ত গিয়েছেন।

ঘুষের টাকা না দিলে তাদের বিরুদ্ধে কোটে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) প্রদানের হুমকি দেয়া হয়। এই ভয়ে ওই চার যুবক ১৬ দিন ধরে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। আতংকে  রয়েছের ওই চার যুবকের পরিবার।

অথচ ওই যুবকদের বিরুদ্ধে থানায় কোন মাদকের মামলা নেই! ভুক্তভোগী চার যুবকের নাম তরিকুল ইসলাম (১৯),  আমানুল ইসলাম (১৮), মোঃ ছালাম ওরফে সালেম (২৯) ও নাঈম হাওলাদার (২১) । তাদের সকলের বাড়ি বাউফল সদর ইউনিয়নের যৌতা গ্রামে।

সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ২.৩০ মিনিটে উপজেলার বগা ইয়াকুব শরীফ ডিগ্রি কলেজ গেটে বাউফল-বরিশাল সড়কে পুলিশের চেক পোস্টে ১ কেজি ৫০০ গ্রাম গাঁজাসহ আটক হয় বাউফল সদর ইউপির যৌতা গ্রামের দেরাজ সরদারের ছেলে হাসিব সরদার।

এ ঘটনায় হাসিব সরদারকে একমাত্র আসামি করে বাউফল থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করে বগা পুলিশ ফাড়ির এসআই সোহেল খান। যাহার মামলা নং ৩ তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২২ইং।  এ ঘটনার পরের দিন শুক্রবার বাউফল থানা পুলিশের এএসআই সুজন দেবনাথ বাউফলের যৌতা ও ওলিপুরা গ্রামে যায়। গিয়ে ভুক্তভোগী ৪ জন সাধারণ মানুষের পরিবারকে জানায় ১.৫ কেজী গাঁজার একটি মাদক মামলায় তাদের সন্তানদের নাম আছে। ওরা বাড়ি আসলে যেনো তাকে ডাকানো হয়৷

এরপরে এএসআই সুজনের কথিত সোর্স অপর একটি মাদক মামলার আসামি হাসান সরকার (২২) ও আরিফ হোসেন প্যাদা পৃথক ভাবে ভুক্তভোগী পরিবারের কাছে যায় এবং এএসআই সুজনের সাথে রফাদফা করে নাম কাটানোর পরামর্শ দেয়, সুজন দেবনাথ কে প্রতি পরিবার ১৫ হাজার টাকা করে দিলে নাম কাটানো সম্ভব বলে তাদের জানান কথিত সোর্স।

পরবর্তীতে এএসআই সুজন নিজে ভুক্তভোগী তরিকুলের মুঠোফোনে ফোন দিয়ে সরাসরি টাকা দাবি করেন এবং তিনি নিজেকে ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দাবি করেন। মুঠোফোনে চাঁদা দাবি করার একাধিক কথোপকথনের অডিও রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এ বিষয়ে ভুক্তভূগী আমানুল ইসলামের পিতা বাবুল সরদার বলেন, এএসআই সুজন দেবনাথ তাকে জানিয়েছে তার ছেলে মাদক মামলার আসামি। আমি ( সুজন) মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এবং বিষয়টি তার সাথে মিট করার জন্য বলেন। অন্যথায় কোটে নাম চলে যাবে। যে মামলার কথা বলা হয়েছে ওই মামলার কপি তুলে দেখি আমার ছেলে সহ যাদের কথা বলা হয়েছে তাদের কারও নাম নেই।

এ বিষয়ে এএসআই সুজন দেবনাথের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোন কেটে দেন।  এ বিষয়ে ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই রফিকুল ইসলাম বলেন, এ মামলায় অন্য কাউকে আসামি করার সুযোগ নেই। এছাড়া তিনি আর কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আল মামুন বলেন, আমার কোন অফিসার কাউকে হয়রানি করতে পারেনা। অভিযোগের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পটুয়াখালি

আপনার মমত লিখুন :

 
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  সাংবাদিকের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন  বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের নতুন চেয়ারম্যান আব্বাস উদ্দিন খান  প্রথম আলোর সেই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা  সুরা ইখলাস অর্থসহ উচ্চারণ এবং বিশেষ মর্যাদা ও ফজিলত  বাউফলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাল্টাপাল্টি বসতঘর ভাঙচুর  সংশোধন হচ্ছে আইন: মোটরসাইকেলসহ সব গাড়ির বীমা লাগবে  ইসলাম ধর্মগ্রহণ করলেন জনপ্রিয় অভিনেতা ডিসেনা  এক ইলিশের দাম ৬ হাজার টাকা  টিসিবির পণ্যসহ ব্যবসায়ী আটক: ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারাদণ্ড  বাউফল জোড়া খুন: গেমসে অস্ত্র চালানো শিখে কিশোর গ্যাং