২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ খচিত প্রথম স্মার্টকার্ড পেলেন বিএনপি নেতা শাহজাহান ওমর

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:২৭ অপরাহ্ণ, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ খচিত প্রথম স্মার্টকার্ড পেলেন বিএনপি নেতা শাহজাহান ওমর

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল >> জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ লেখাটি যুক্ত করা হয়েছে। রবিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) থেকে জাতির এই বীর সন্তানদের মাঝে এই কার্ড বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আর এ উদ্যোগের প্রথম স্মার্টকার্ডটি পেয়ে ইতিহাসে স্থান করে নিলেন বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর বীর উত্তম।

উদ্বোধনী দিনে ১০০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার মাঝে এই স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হয়। পরে পর্যায়ক্রমে সব মুক্তিযোদ্ধার হাতে স্মার্টকার্ড পৌঁছে দেওয়া হবে।

সকাল ১১টায় রাজধানীর হোটেল সোনারগাওয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ খচিত স্মার্টকার্ড বিরতণ শুরু হয়।

এছাড়া, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা, মোহাম্মাদ আবু হাফিজ, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, এসকে হাবিবুল্লাহ, মো. ওয়ালিয়ার রহমান, তিমির নন্দী, রানা দাশ গুপ্ত, র আ ম উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, নুরুল ইসলাম নাহিদ, বিশ্বাস লুৎফর রহমান, এসএম আনোয়ারা  বেগম, মো. গোলাম আজাদ, মো. মাহাবুব এলাহী রঞ্জু (বীর প্রতীক), কণ্ঠ যোদ্ধা শাহিন সামাদ, রুহুল আমীন হাওলাদার, মো. আবদুল মালেক মিয়া, আলী নূর কাদেরী, মো. আমিরুল ইসলাম, খন্দকার বজলুল হক, এম শামসুল হক, আনোয়ার হোসেন খান, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, মো. রফিকুল আলম, বুলবুল মহলানবীশ লালা,  সৈয়দ হাসান ইমাম, লায়লা হাসান, মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, মো. কামরুচ্ছামা, শোভা পারভীন, নাসির উদ্দিন ইউসুফ, মোফাজ্জেল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম), শেখ শহীদুল ইসলাম, গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক), মো. আব্দুল বাতেন, মো. আব্দুল হাই, চৌধুরী আহসানুল কবীর, শাজাহান সিদ্দিকী (বীর বিক্রম), আ স ম ফিরোজ প্রমুখ প্রথম দিন ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ খচিত ন্যাশনাল আইডি কার্ড পান।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা, কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম ও বেগম কবিতা খানম এবং ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। শারীরিক অসুস্থতার কারণে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার এবং করোনা পজিটিভ হওয়ায় আরেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেননি।

সভাপতির বক্তব্যে ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার জানান, আজকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে এই কার্ড বিতরণ শুরু হলো। পর্যায়ক্রমে সব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে এই কার্ড তুলে দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে একই সঙ্গে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ১৯৭২-এর নির্ভরযোগ্য বাংলা পাঠ, ঞযব জবঢ়ৎবংবহঃধঃরড়হ ড়ভ ঃযব চবড়ঢ়ষব ঙৎফবৎ, ১৯৭২, জাতীয় সংসদের নির্বাচনী এলাকার সীমানা নির্ধারণ আইন-২০২১ এই তিনটি আইন সম্বলিত বইয়ের মোড়কও উন্মোচন করা হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ ডিসেম্বর কমিশনের ৯২তম সভায় বিষয়টি নিয়ে প্রথম নথি উপস্থাপন করা হয়। এতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্রের নমুনা নিয়ে প্রাথমিক আলোচনা করা হয়। এনআইডি দেখেই যাতে সবাই জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের চিনতে পারেন, সেজন্য তাদের সম্মানে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ সংবলিত এনআইডি দেওয়ার উদ্যোগ  নেয় ইসি।

উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশে গেজেটেড মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা প্রায় ১ লাখ ৮৩ হাজার ৫৬০ জন।  যে মুক্তিযোদ্ধারা আগে স্মার্টকার্ড পেয়েছেন, তাদেরও পর্যায়ক্রমে এই বিশেষ মর্যাদাপূর্ণ স্মার্টকার্ড দেবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশন।

9 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন