২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: নারী-শিশুসহ ৩০ জনের লাশ উদ্ধার

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০১:৫৪ অপরাহ্ণ, ২৯ জুন ২০২০

বার্তা পরিবেশক অনলাইন:: রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকা সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে ৫০ জন যাত্রী নিয়ে মর্নিং বার্ড নামের একটি লঞ্চডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত শিশুসহ কমপক্ষে ৩০ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া আরও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানা গেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উদ্ধারে তৎপরতা চালাচ্ছেন নৌবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা।

এখন পর্যন্ত নিহতদের মধ্যে ২৩ জন পুরুষ, ৫ জন নারী এবং দুইজন শিশু রয়েছেন। এদিকে অভিযুক্ত লঞ্চটিকে আটক করা হলেও চালক পলাতক রয়েছে। অপরদিকে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি শনাক্ত করা হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুন) ঘটনাস্থল থেকে ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে সকাল ১০টার দিকে লঞ্চডুবির এ ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় কমপক্ষে ৫০ যাত্রী নিয়ে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ রুটের মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। লঞ্চটি থেকে কয়েকজন যাত্রী সাঁতরে পাড়ে উঠলেও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন। নিখোঁজদের মধ্য থেকে ইতোমধ্যেই অন্তত ২৫ জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। বাকিদের উদ্ধারে অভিযান চলছে।

বিআইডব্লিউটিএ এর পরিবহন পরিদর্শক মো. সেলিম জানান, মুন্সিগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে সদরঘাটের দিকে আসছিল মর্নিং বার্ড। শ্যামবাজারের কাছে নদীতে চাঁদপুর থেকে আসা ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় সেটি মাঝ নদীতে ডুবে যায়। মর্নিং বার্ড নামের ওই লঞ্চে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও অনেকেই ভেতরে আটকা পড়েন।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে প্রায় ৭০/৮০ জন যাত্রী ছিলেন ওই লঞ্চে। এর মধ্যে নিখোঁজ হয়ে যান প্রায় ৭০ জন।

7 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন