১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

বেপরোয়া সেই রেজাউলের সহযোগী সন্ত্রাসীরা, আতঙ্কে সাংবাদিক

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৮:৪৫ অপরাহ্ণ, ১৫ মার্চ ২০১৭

নলছিটির মূর্তিমান আতঙ্ক রেজাউল চৌধুরী বিচারকের দায়ের করা মামলা জেলহাজতে থাকলেও এখনো আতঙ্ক কাটছে না নলছিটিবাসীর। রেজাউলের বিরুদ্ধে বিচারকের মামলা দায়ের পর ঝালকাঠীর আদালতে আরো দুইটি মামলা দায়েরের ঘটনায় সকলের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এলেও বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন সংবাদকর্মীরা।

স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি, ইভটিজিং ও ধর্মীয় অনভূতিতে আঘাতের ঘটনায় রেজাউলের বিরুদ্ধে মামলা হলেও তার সহযোগিরা এখনো বাইরে আছে। ওই সহযোগিরা এখনো নলছিটি বাসস্ট্যান্ডে তাদের অবৈধ নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে। হঠাৎ করে কোন বড় ধরনের অঘটনের জন্ম দিয়ে এলাকায় ফের ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে পারে রেজাউল বাহিনী। এই আতঙ্কে আতঙ্কিত গোটা নলছিটিবাসী। এরআগেও বাসস্ট্যান্ডের অবৈধ দখল নিতে যুবলীগ নেতা রুহুল আমিন তালুকদারকে কুপিয়ে আহত করে সন্ত্রাসীরা।’’

ওই ঘটনায় দায়েরকৃত হত্যা চেষ্টা মামলার চার্জশিটভূক্ত আসামী এই রেজাউল। বিচারকের দায়ের করা মামলা রেজাউল জেলহাজতে যাওয়ার পর সাধারণ শ্রমিকরা বাসস্ট্যান্ডের নিয়ন্ত্রণ নিতে গেলে তাতে বাধা দেয় নলছিটি থানা পুলিশ।’

অভিযোগ উঠছে- পুলিশ রেজাউল বাহিনীর পক্ষ নিয়ে সাধারণ শ্রমিকদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এতে করে রেজাউল বাহিনী বাসস্ট্যান্ডে অবৈধ দখল ধরে রেখে চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে রেজাউলকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করছে স্থানীয় যুবলীগের কয়েকজন নেতা।

সাংবাদিক পরিচয়দানকারী  স্থানীয় কয়েকজন অপসাংবাদিক রেজাউল বাহিনীর কাছ থেকে নিয়মিত মাসোয়ারা নিয়ে ওই বাহিনীর সাফাই গেয়ে থাকেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে- গত ৭ মার্চ ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চার সাংবাদিকের নামে মিথ্যা অভিযোগে মামলা করতে গিয়ে ফেঁসে যান বখাটে রেজাউল। আদালতে উপস্থাপিত ভিডিও চিত্র দেখে এবং পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট আদালতের বিচারক এইচএম কবির হোসেন বাদী হয়ে রেজাউলের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি, ইভটিজিং ও ধর্মীয় অনভূতিতে আঘাতের অভিযোগে মামলা (সি.আর-৪১/১৭) দায়ের করেন।’’
এ মামলায় রেজাউল জেলহাজতে রয়েছেন।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে- রেজাউল বাহিনীর সদস্যরা এখনো তৎপর। জেলখানায় বসে কলকাঠি নাড়ছেন বখাটে রেজাউল। এমনকি সংবাদকর্মীদের দমনে স্ত্রী সুমী আক্তারকে দিয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের পায়তারা করছেন। স্ত্রীর নাম ব্যবহার করে স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে সংবাদকর্মীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন ওই রেজাউল।’

এ ঘটনায় গত সোমবার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এইচএম কবির হোসেনের আদালতে নলছিটি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি  মুঃ মনিরুজ্জামান মুনিরের দায়ের করা ১০ লক্ষ টাকার মানহানির মামলা (সি.আর-৩৭/১৭) আমলে নিয়ে মঙ্গলবার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে

বিচারক আসামীদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

অন্যদিকে সাংবাদিকের জানমালের নিরাপত্তার দাবিতে নলছিটি সাংবাদিক সমিতির পক্ষে ঝালকাঠীর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বুলবুল আহমেদের আদালতে সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মাওলা শান্তর দায়ের করা মামলায় (এম.পি-১৪৬/১৭) বিচারক রেজাউলসহ অন্যান্য আসামীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে।’’

এরপরও থেমে নেই রেজাউল বাহিনী। প্রতিনিয়ত সংবাদকর্মীদের হুমকি-ধমকি রেজাউল বাহিনীর ক্যাডাররা। যদিও হুমকি-ধমকির পর্বটা তিনিই শুরু করে গেছেন। সংবাদ প্রকাশের জেরে জেলহাজতে যাওয়ার পূর্বে রেজাউল গত ৬ মার্চ তার দলবল নিয়ে নলছিটির বাইপাস সড়ক এলাকায় স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিককে খুন-জখমের হুমকি দেয়।’

এভাবে প্রতিনিয়ন নিরাপত্তাহীনতায় দিনাতিপাত করছে সংবাদকর্মীরা। নলছিটি থানা পুলিশ সংবাদকর্মীদের নিরাপত্তা দিতে বারবার ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে বলে সংবাদকর্মীদের অভিযোগ।’’

51 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন