১ ঘণ্টা আগের আপডেট রাত ২:০ ; মঙ্গলবার ; ডিসেম্বর ৬, ২০২২
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

ভোলায় বিএনপি নেত্রীকে ঘরে আটকে নির্যাতন!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
১:৪৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ৫, ২০১৮

ভোলার দৌলতখান উপজেলায় এক বিএনপি নেত্রীকে ঘরে আটকে রেখে রাতভর শারীরিক নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ইয়াছির লিটনের বিরুদ্ধে।

নির্যাতনের শিকার তাছলিমা বেগম ভোলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মঙ্গলবার (০৩ এপ্রিল) রাতে উপজেলার উত্তর জয়নগর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইয়াছির লিটনের নির্দেশে তার ভগ্নিপতি, ভাগনে ও ভাতিজা মিলে স্থানীয় কাজিবাড়িতে আটকে রেখে রাতভর শারীরিক নির্যাতন করেছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি নেত্রী।

পরে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে ছেড়ে দিলে তাছলিমা ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি উপজেলা মহিলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি নেত্রী তাছলিমা  বরিশালটাইসমকে বলেন, গত ইউপি নির্বাচনে ৪,৫,৬ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে আমি নির্বাচন করেছিলাম। প্রতিপক্ষ গ্রুপ জোর করে আমাকে হারিয়ে দিয়েছে। সেই থেকেই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইয়াছির লিটন আমার বিরোধিতা করে আসছে।

তিনি বরিশালটাইসমকে বলেন,  সর্বশেষ গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আদালত থেকে বাড়ি ফিরছিলাম আমি। বাড়ির কাছে যাওয়ার পরে এক অপরিচিত মহিলা আমাকে নির্জনে ডেকে নেয়। এ সময় ৪-৫ জন পুরুষ এসে আমাকে বেধড়ক পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ সময় রক্তাক্ত অবস্থায় দৌড়ে পালাতে গেলে সন্ত্রাসীরা আবার আমাকে ধরে কাজিবাড়ি নিয়ে যায়। পরে হাত-পা বেঁধে সারারাত নির্যাতন করে। লাথি, ঘুষি, চড়-থাপ্পড় মারে। পরে তাদের কাছে প্রাণভিক্ষা চাইলে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে আমাকে ছেড়ে দেয়। ওই অবস্থায় সকাল সাড়ে ৭টায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হই।

তাছলিমা বেগম আরও বরিশালটাইসমকে বলেন, আমার একটাই দোষ, আমি বিএনপি করি। আমার স্বামী নেই। ছয়টি সন্তান। সুযোগ পেলেই চেয়ারম্যানের লোকজন আমাকে বিপদে ফেলছে। গত মঙ্গলবার রাতে চেয়ারম্যান ইয়াছির লিটনের লোকজন আমাকে হত্যার জন্য এ নির্যাতন চালায়। পরে কাউকে কিছু না বলার শর্তে মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পেয়েছি।

ভোলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. নিরুপম বরিশালটাইসমকে বলেন, তাছলিমাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে। শরীরের কয়েকটি স্থানে সেলাই লেগেছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত উত্তর জয়নগরের চেয়ারম্যান ইয়াছির লিটন অভিযোগ অস্বীকার করে বরিশালটাইসমকে বলেন, আপনারা তদন্ত করে দেখেন। এ ঘটনার সঙ্গে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আমি জানিও না কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি চেয়ারম্যান হওয়ার পরে তাছলিমা আমার বিরুদ্ধে সাতটি মামলা করেছে। সে কাজিবাড়ি থেকে স্বর্ণালংকার ও মোবাইল নিয়ে পালানোর সময় এলাকার লোকজন তাকে ধরে মারধর করে। আমি ও আমার ইউনিয়নের কোনো গ্রামপুলিশ ঘটনাস্থলে যায়নি।

দৌলতখান থানার ওসি এনায়েত হোসেন বরিশালটাইমসকে বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। আমাদের কাছে অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভোলা

 

আপনার মতামত লিখুন :

 
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  ছাত্রলীগ ছেড়ে ছাত্রদলে তারা  পুলিশের সামনে থেকে তুলে নিয়ে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা  শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে টাইব্রেকারে স্পেনকে হারিয়ে শেষ আটে মরক্কো  বিয়ের হুমকি দিলেন স্বামী: ২ সন্তানকে পুড়িয়ে মারলেন মা  লাখ টাকায় বিক্রি প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর!  স্বামীর টাকা ও স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রেমিকার হাত ধরে উধাও স্ত্রী  আ.লীগ অফিস ভাঙচুর: গ্রেফতার আতঙ্কে বাড়িছাড়া বিএনপি নেতাকর্মীরা  ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়ে দায়িত্বভার নিলেন বাইশারী কলেজের নতুন সভাপতি গোলাম ফারুক  বরগুনা/ ছেলে মারা যাওয়ার ৪ বছরেও শাশুড়িকে ঘরে উঠতে দিলেন না পুত্রবধূ  বিএনপির ১৫০০ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তারের অভিযোগ