৪ মিনিট আগের আপডেট রাত ৮:১৫ ; শনিবার ; নভেম্বর ২৮, ২০২০
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

মাথা গোঁজার শেষ সম্বলটুকু হারিয়ে কাঁদছেন রোসোনা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
৫:৩৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক, দৌলতখান:: রোসোনা বেগম বয়স ষাটোর্ধ্ব, স্বামী বৃদ্ধ খোরশেদ আলম। তাদের তিন ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। বর্তমানে তিন ছেলে বিয়ে করে অন্যত্রে থাকেন। ছেলেরা তাদের খোঁজ-খবর রাখেন না। মেয়ের বিয়ের কয়েক বছর পর স্বামী তাকে রেখে চলে যান। ছেলেরা ভরন-পোষণ না দেয়ায় বৃদ্ধ খোরশেদ আলম ভিক্ষাবৃত্তি করে কোন রকম সংসার চালাতেন। গেল দুই বছর হলো খোরশেদ আলম অর্শ রোগে আক্রান্ত হয়ে ঘরে থাকেন। পরে সংসারের হাল ধরেন স্বামী পরিত্যক্তা তাদের মেয়ে সেফালী বেগম। সেফালী বিভিন্ন বাড়িতে গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজ করতেন। তার আয়ে দুমুঠো ভাত বৃদ্ধদম্পতির কপালে জোটে। ছেলেরা তাদের ছেড়ে চলে যাওয়ার পর একমাত্র সম্বল ছিলো ঘরটি। ওই ঘরে রোসোনা দম্পতিসহ তার বড় মেয়ে সেফালী বেগম বসবাস করেন।

টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ভোলার দৌলতখানের মানুষের জনজীবন। শুক্রবার সকাল দশটায় রোসোনা দম্পত্তি ও তার মেয়ে সেফালী বেগম ঘরের রান্নাবান্নার কাজ করছিলো। হঠাৎ দমকা হাওয়ায় ঘরের পাশে থাকা রেন্ডিগাছ উপড়ে পরে তাদের ঘরটি চুর্ণ-বিছিন্ন হয়ে যায়। এতে করে বৃদ্ধ দম্পতিসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘরের নিচে চাপা পড়লে, প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে। তবে তারা বর্তমানে সুস্থ আছেন। কিন্তু তাদের মাথা গোঁজার ঘরটি চুর্ণ-বিছিন্ন হয়ে গেছে।

রোসোনা বেগম দৌলতখান পৌরসভা ৩ নং ওয়ার্ডের মাছঘাট এলাকায় বসবাস করছেন। তিনি বরিশাল টাইমস্কে জানান, স্বামী খোরশেদ আলম ভিক্ষাবৃত্তি করে সংসার চালাতেন। তিনি দীর্ঘ ২ বছর যাবৎ অর্শ রোগে ভোগছেন। তার চিকিৎসার খরচ মেটাতে পারছিনা। বর্তমানে মেয়ে সেফালীর আয়ে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করি।

তিনি আরও জানান, বৃহস্পতিবার রাতে আমি নিজে খেয়ে পরিবারের অন্য সদস্যসহ ঘরের ভিতর ঘুমিয়ে পরি। শুক্রবার সকালে ঘরের রান্নাবান্নার কাজে মশগুল ছিলাম। হঠাৎ দমকা হাওয়ায় ঘরের পাশে থাকা রেন্ডিগাছটি উপড়ে পরে আমাদের ঘরটি চুর্ণ-বিছিন্ন হয়ে যায়। এখন আমরা থাকবো কোথায়? আল্লাহ-ই ভালো জানেন। আমাদের এমন কষ্ট আল্লাহ ছাড়া, কেউ দেখেন না। ঘরের নিচে বৃদ্ধ রোসোনা বেগম, খোরশেদ আলম, মেয়ে সেফালী বেগম, নাতিন মিনারা ও নাতিনের জামাতা শরীফ চাপা পড়েন। পরে প্রতিবেশীরা তাদের ডাক-চিৎকার শুনে উদ্ধার করে। বর্তমানে অসহায় পরিবারটি মানবেতর জীবন-যাপন করছে। এদিকে খবর পেয়ে উপজেলা যুবলীগ নেতা হাসান মাহমুদ অসহায় পরিবারকে ২০ কেজি চাল বিতরণ করেন।

স্থানীয়রা জানান, অসহায় রোসোনা দম্পত্তি পরিবার কয়েকদিন আগে রেন্ডিগছর মালিক সিরাজকে গাছটির ডাল-পালা কেটে দেয়ার কথা বলেছেন। যদি গাছটির ডাল-পালা কেটে দিতো, হয়তো রোসোনার ঘরটি ওপর এভাবে গাছটি উপরে পড়তোনা। রোসোনা বেগমের পরিবারটি অত্যন্ত অসহায়। আল্লাহ ছাড়া তাদের দেখার মতন কেউ নেই। তারা মনে করেন, অসহায় ওই পরিবারকে যদি সকলে সহযোগীতা করেন, তাহলে হয়তো আবার নতুন করে তাদের মাথা গোঁজার ঘরটি ফিরে পাবেন।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের মতামত জানতে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বিভাগের খবর, ভোলা

আপনার মতামত লিখুন :

 

এই বিভাগের অারও সংবাদ
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
শাহ মার্কেট (তৃতীয় তলা),
৩৫ হেমায়েত উদ্দিন (গির্জা মহল্লা) সড়ক, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: ০৪৩১-৬৪৮০৭, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  রাজাপুরে চালককে অজ্ঞান করে সিএনজি ছিনতাই  কলাপাড়ায় পাঁচদিনব্যাপী রাস উৎসব শুরু  চরফ্যাসনে জেলের স্ত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা, মামলা  দেশে অর্থনীতির সকলক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে: এমপি শাওন  ভোলার রাস্তায় কোস্টগার্ডের প্রতিবন্ধকতা: অবরুদ্ধ ১১ পরিবার  চরমোনাই পীর-মামুনুল হককে গ্রেপ্তারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের  শিক্ষার্থীদের পেটানোর অভিযোগ: মূল ঘটনা ফাঁস!  মাটি খুঁড়লেই মিলছে হীরা! গ্রামে তোলপাড়  গৌরনদীর নবাগত ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ  করোনা কেড়ে নিল আরও ৩৬ প্রাণ: নতুন আক্রান্ত ১৯০৮