২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

মুলাদী হাসপাতালের পরিত্যক্ত ভবনে চলছে চিকিৎসা সেবা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:০৯ অপরাহ্ণ, ২৭ জুলাই ২০২০

বার্তা পরিবেশক মুলাদী:: পরিত্যক্ত ভবনে ঝুঁকি নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছেন মুলাদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা। যে কোন সময় হাসপাতালের ৩১ শয্যার পুরাতন ভবনটি ধ্বসে পড়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

জানা গেছে, ২০০৬ সালে উপজেলার একমাত্র স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। কিন্তু নানা কারণে ১৯ শয্যার ভবনটির নির্মাণ বিলম্বিত হয়ে বর্তমান জনবান্ধব সরকারের হস্তক্ষেপে ২০১৭ সালে এর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। ফলে ২০১৩ সালে হাসপাতালের পুরাতন ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে ১৯ শয্যার নতুন ভবনের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে মানুষের দ্বার গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌছে দেওয়া হয়। ৫০ শয্যার সমস্ত কার্যক্রম ১৯ শয্যার নতুন ভবনে সংকুলান না হওয়ায় পুরাতন ভবনেরও কিছু অংশ ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের জরুরী বিভাগ, নিয়মিত বহির্বিভাগ, প্রয়োজনীয় অপারেশন চালু রাখা সর্বোপরি ডাক্তারগণের আন্তরিকতার কারণে রোগীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

নানা অব্যবস্থাপনা এবং অপ্রতুলতার কারণে একটা সময় স্বাস্থ্যসেবা বিঘ্নিত হলেও বর্তমান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ সাইয়েদুর রহমান দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকে পট পরিবর্তন হতে থাকে। তার সার্বক্ষণিক উপস্থিতি, উৎসাহ এবং দক্ষ প্রশাসনিক পরিচালনা হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবার পরিবেশ ফিরে এসেছে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীগণ জীবনের ঝুঁকি নিয়েও সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এমনকি কোভিড-১৯ সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি নিয়েও আইসোলেশনে ও কোভিড আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

স্বাধীনতার স্থপতি, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মানবতার ডাকে সাড়া দিয়ে চিকিৎসকগণ এই উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের চিকিৎসা সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে মুলাদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন ও রোগীদের উন্নত সেবা প্রদান করায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ সাইয়েদুর রহমান জনপ্রশাসন পদক ‘কাইযেন-২০১৭’ লাভ করেন।

এসব বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ সাইয়েদুর রহমান বরিশালটাইমসকে জানান, করোনার ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীগণ নিয়মিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। হাসপাতালের পরিত্যক্ত ৩১ শয্যার পুরাতন ভবন ও ডক্টরস কোয়ার্টার পুনঃনির্মাণ হলে এবং শূন্যপদে দক্ষ লোকবল পেলে কাঙ্কিত স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম আরো এগিয়ে যাবে।

8 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন