৩২ মিনিট আগের আপডেট বিকাল ৪:২০ ; বৃহস্পতিবার ; সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

মেঘনার ভাঙনে অনিশ্চিতায় তিন বিদ্যালয়ের ভবিষ্যত

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
৫:২৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১

মেঘনার ভাঙনে অনিশ্চিতায় তিন বিদ্যালয়ের ভবিষ্যত

দৌলতখান (ভোলা) প্রতিনিধি >> ভোলার দৌলতখানে মেঘনা নদীর ভয়াবহ ভাঙনে বিলীন হয়ে যাওয়া হাজিপুর ইউনিয়নের তিনটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। মধ্য-মেঘনায় অবস্থিত দ্বিপ ইউনিয়ন হাজিপুরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বিদ্যালয় তিনটি। সহস্রাধিক পরিবারের প্রায় পাঁচ সহস্রাধিক মানুষ বসবাস করতেন ওই ইউনিয়নে। ওই চরে ভূমিহীনদের জন্য প্রতিষ্ঠিত সরকারি আবাসনের ৪২০ টি ঘর, ব্যক্তি পর্যায়ের পাঁচ শতাধিক ঘর ও তিনটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় গত ছয় মাসের মধ্যে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

এ ছাড়া একটি বাজার কয়েকটি মসজিদ নদী গর্ভে চলে যায়। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে ওই ইউনিয়নের সর্বশেষ পাকা স্থাপনা ৫০ নং মধ্য হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সদ্য প্রতিষ্ঠিত তিন তলা ভবনটিও নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ওই ভবনটি ২০২০ সালে ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকায় নির্মিত হয়েছিল। নদী ভাঙনে বিলীন হওয়া বিদ্যালয় তিনটি হচ্ছে, ৫০ নং মধ্য হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৯৩ নং দক্ষিণ নলডুগী বৈকুন্ঠপুর জাতীয়কৃত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১০১ নং হাজিপুর জাতীয়কৃত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এরমধ্যে ১০১ নং হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনটি টিন সেড হওয়ায় ওই বিদ্যালয় ভবনের মালামাল ও আসবাবপত্র সংরক্ষণ করে রাখা হয়েছে। বাকি দুইটির পাকা ভবন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিলামে বিক্রি করে দিয়েছে।

বুধবার সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, মেঘনা নদীর ভাঙনের শিকার বিদ্যালয় তিনটি উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নে ৭ নং ওয়ার্ডে অস্থায়ী ভাবে ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত হচ্ছে। ভাঙন পূর্ববর্তী কোন শিক্ষার্থীই বর্তমানে বিদ্যালয়ে না থাকলেও প্রত্যেক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ ভর্তিও জন্য এলাকায় হণ্যে হয়ে অ-ভর্তিকৃত ও ঝরে পড়া শিক্ষার্থী খোঁজ করছেন। ১০১ নং হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরে আলম বাহাদুর বলেন, নদী ভাঙনের শিকার হয়ে বিদ্যালয়গুলো স্থানান্তরিত হয়েছে। এ বছর শিক্ষার্থী পাওয়া না গেলেও আগামী বছর বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থী পেতে কোন সমস্যা হবে না।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেন বলেন, বিদ্যালয় তিনটির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আমার উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে চিঠির মাধ্যমে অবহিত করেছি।

বিভাগের খবর, ভোলা

আপনার মতামত লিখুন :

 

এই বিভাগের অারও সংবাদ
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
শাহ মার্কেট (তৃতীয় তলা),
৩৫ হেমায়েত উদ্দিন (গির্জা মহল্লা) সড়ক, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: ০৪৩১-৬৪৮০৭, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  পিরোজপুর/ এহসান গ্রুপে ৩০ লাখ টাকা হারিয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু  নলছিটি পৌরসভা : অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত শুরু  ‘আমি প্রেসিডেন্ট হলে ফ্রান্সে মোহাম্মদ নাম নিষিদ্ধ করব’  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতি শুরু  বরিশাল মহানগর ছাত্রদল সভাপতিকে সশরীরে কেন্দ্রে তলব  বরিশাল শের-ই বাংলা হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে আরও ১ জনের প্রাণহানি  করোনা পরিস্থিতি নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সুপ্রিমকোর্টের আইনি নোটিশ  মনপুরায় পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু  ১০ কেজি পাওনা চাল নিয়ে বাকবিতণ্ডা, চাচাকে কুপিয়ে হত্যা  দেহরক্ষীসহ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানো মেজবাহ গ্রেপ্তার