১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

মেয়রসহ পরিবারের পাঁচজন করোনায় আক্রান্ত

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১:২৪ অপরাহ্ণ, ৩০ মে ২০২০

বার্তা পরিবেশক, অনলাইন :: কক্সবাজার পৌরসভার দুই কাউন্সিলরের পর এবার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের করোনা পজিটিভ এসেছে। সেই সঙ্গে করোনা পজিটিভ এসেছে তার পরিবারের অপর চার সদস্যের।
শনিবার (৩০মে) সন্ধ্যায় কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাব থেকে পাওয়া রিপোর্টে মেয়র মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের পাঁচ সদস্যের করোনা ‘পজিটিভ’ এসেছে।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, মেয়র মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের নমুনা গত ২৯ মে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পাঠানো হয়।
মেয়রের পরিবার সূত্র জানায়, কোনো ধরনের লক্ষণ না থাকা সত্ত্বেও চিন্তামুক্ত হতে নমুনা দিয়েছেন তারা। এতে করোনা পজিটিভ এসেছে তাদের।
এদিকে, করোনার ভয়কে জয় করে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার প্রত্যাশায় নিজেসহ পরিবারের সবার সুস্থতায় দোয়া চেয়েছেন কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান।
মেয়র বলেন, জনসেবায় জনতার মাঝে থাকতে গিয়ে হয়তো করোনায় আক্রান্ত হয়েছি। আমার থেকে সংক্রমিত হয়েছে পরিবারের সদস্যরা। আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন।
এর আগে ২৮ মে কক্সবাজার পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিজানুর রহমান মিজান ও ১০ নম্বর ওয়ার্ডের সালাহউদ্দিন সেতুর করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে। এরপরই করোনা নিয়ন্ত্রণে তারা কক্সবাজারে কারফিউ জারির অনুরোধ জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া বলেন, কলেজের ল্যাবে শনিবার (৩০ মে) ১৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৯ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এর মধ্যে কক্সবাজার সদর উপজেলার ২১ জন ও চকরিয়ার একজন। চট্টগ্রামের লোহাগাড়ার একজন, বান্দরবান সদরের একজন, রুমা উপজেলার একজন ও থানচি উপজেলার একজন। বাকি তিনজন চকরিয়া উপজেলার পূর্বের করোনা পজিটিভ।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য অনুযায়ী, এ নিয়ে কক্সবাজারে ২৭ রোহিঙ্গাসহ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪০ জন। মারা গেছেন ১৪ জন। মৃতদের মাঝে সদর উপজেলার নয়জন, চকরিয়ার চারজন এবং রামুর একজন রয়েছেন।

কক্সবাজার সদরে ২৫১ জন আক্রান্তের মাঝে সুস্থ হয়েছেন ২২ জন। রামুতে আক্রান্ত ২৪ জনের সুস্থ হয়েছেন দুইজন। চকরিয়ায় আক্রান্ত ১৫৭ জনের সুস্থ হয়েছেন ৭০ জন। পেকুয়ায় আক্রান্ত ৩৮ জনের সুস্থ হয়েছেন ২১ জন। মহেশখালীতে আক্রান্ত ৩১ জনের মধ্যে ১২ জন সুস্থ। টেকনাফে আক্রান্ত ২১ জনের সুস্থ হয়েছেন আটজন। উখিয়ায় আক্রান্ত ৮৯ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন সাতজন। কুতুবদিয়ায় আক্রান্ত দুইজন চিকিৎসাধীন।

9 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন