১৫ মিনিট আগের আপডেট সকাল ১১:৪৭ ; শুক্রবার ; সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

মেয়েদের স্কুলে ছেলে ভর্তি নিতে মাইকিং! এলাকায় তোলপাড়

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
৪:৫৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৭

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সরকারী নীতিমালা উপেক্ষা করে ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি নিতে মাইকিং চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার থেকে উপজেলার কালাইয়া বন্দর ও তার আশে পাশের এলাকায় এই মাইকিং করানো হয়।

আকস্মিক ’মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি’ এ ধরণের ঘোষণায় স্থানীয় অভিভাবক বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

তবে উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছেন, মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি হওয়ার কোন বিধান নাই। যদিও এর পরেও কেউ করে থাকে সেটা হবে আইন না মেনে।

এমতাবস্থায় খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ১৯৫৪ সালে স্থাপিত হয়। বর্তমানে বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীর সংখ্যা সাড়ে তিনশত। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে এখন পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ে কোন ছেলে ভর্তি করানো হয়নি।

ওই বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব এবিএম রেজা বরিশালটাইমসকে জানিয়েছেন, পার্শ্ববর্তী কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মেয়েদের ভর্তি করে সহশিক্ষা পাঠদান করছে। এ কারণে কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আশানুরুপ ছাত্রী পাওয়া যাচ্ছে না। যে কারণে ম্যানেজিং কমিটির সভায় ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়ে অনুমতির জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করা হয়েছে।

একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. হারুনূর রশিদ বরিশালটাইমসকে বলেন, বিদ্যালয়ের ভৌত অবকাঠমো বর্তমানে পর্যাপ্ত রয়েছে। তাই ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি হওয়ার কথা মাইকে ঘোষণা করা হয়। মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি করলে বিদ্যালয়ের পরিবেশগত কোন সমস্যা হবে কী না জানাতে চাইলে প্রধান শিক্ষক কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদাহরণ দেন। তবে অনুমতি না নিয়েই কেন মাইকে ভর্তির বিজ্ঞতি প্রকাশ করলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেননি।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক অভিভাবক বলেন, বিদ্যালয়টির কিছু অতি উৎসাহি শিক্ষক অন্য একটি বিদ্যালয়ের প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়টির শিক্ষকগণ প্রাইভেট পড়ানোয় ব্যস্ত থাকেন, তারা বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে অমনোযোগী। এ কারনেই ক্রমশই বালিকা বিদ্যালয়টির পড়াশুনার মান প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় অন্য বিদ্যালয়ে ঝুঁকছে শিক্ষার্থীরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহামুদ জামান বরিশালটাইমসকে বলেন, বিদ্যালয়টির পক্ষ থেকে ছেলেদের ভর্তির জন্য লিখিত আবেদন করা হয়েছিল। সরকারিভাবে এ ধরনের কোন বিধিবিধান নেই বলে আমি তাদেরকে না বলে দিয়েছি। এরপরেও মাইকিং করানোটা ঠিক হয়নি।

এই বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম বরিশালটাইমসকে জানান, এবিষয়ে আমি এখন পর্যন্ত কিছুই জানি না।

পটুয়াখালি

 

আপনার মতামত লিখুন :

 
এই বিভাগের অারও সংবাদ
ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: [email protected], [email protected]
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  ঢাকা-বরিশাল রুটে বিমান সার্ভিস বন্ধের ষড়যন্ত্র!  বিয়ে বাড়ি থেকে ফেরার পথে মাইক্রোবাস-মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে ২ যুবকের মৃত্যু  মা হয়ে লুকিয়ে রাখাটা নোংরামি: জ্যোতিকা জ্যোতি  ইডেনে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টা মামলা  বরিশালে পলিথিন পুড়িয়ে জ্বালানি তেল উৎপাদন তরুণের  সমগ্র পটুয়াখালীর ভিতরে শ্রেষ্ঠ ইউএনও মহিউদ্দিন আল হেলাল!  শাকিব খান অনেক ভালো মনের মানুষ: অপু বিশ্বাস  বরিশাল ও পটুয়াখালীসহ ১৭ জেলায় ৬০ কি.মি বেগে ঝড়োহাওয়ার আশঙ্কা  তদন্তে গাফিলতি: এসআই বিভাসের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ  মঠবাড়িয়ায় প্রশ্নপত্র দিতে দেরি হওয়ায় ভাঙচুর চালিয়েছে পরীক্ষার্থীরা