৩ ঘণ্টা আগের আপডেট রাত ১:৩০ ; শুক্রবার ; ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

মেয়েদের স্কুলে ছেলে ভর্তি নিতে মাইকিং! এলাকায় তোলপাড়

বরিশালটাইমস রিপোর্ট
৪:৫৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৭

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সরকারী নীতিমালা উপেক্ষা করে ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি নিতে মাইকিং চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার থেকে উপজেলার কালাইয়া বন্দর ও তার আশে পাশের এলাকায় এই মাইকিং করানো হয়।

আকস্মিক ’মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি’ এ ধরণের ঘোষণায় স্থানীয় অভিভাবক বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

তবে উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছেন, মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি হওয়ার কোন বিধান নাই। যদিও এর পরেও কেউ করে থাকে সেটা হবে আইন না মেনে।

এমতাবস্থায় খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ১৯৫৪ সালে স্থাপিত হয়। বর্তমানে বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীর সংখ্যা সাড়ে তিনশত। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে এখন পর্যন্ত মাধ্যমিক পর্যায়ে কোন ছেলে ভর্তি করানো হয়নি।

ওই বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব এবিএম রেজা বরিশালটাইমসকে জানিয়েছেন, পার্শ্ববর্তী কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মেয়েদের ভর্তি করে সহশিক্ষা পাঠদান করছে। এ কারণে কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আশানুরুপ ছাত্রী পাওয়া যাচ্ছে না। যে কারণে ম্যানেজিং কমিটির সভায় ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়ে অনুমতির জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করা হয়েছে।

একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. হারুনূর রশিদ বরিশালটাইমসকে বলেন, বিদ্যালয়ের ভৌত অবকাঠমো বর্তমানে পর্যাপ্ত রয়েছে। তাই ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণিতে ছেলেদের ভর্তি হওয়ার কথা মাইকে ঘোষণা করা হয়। মেয়েদের বিদ্যালয়ে ছেলেদের ভর্তি করলে বিদ্যালয়ের পরিবেশগত কোন সমস্যা হবে কী না জানাতে চাইলে প্রধান শিক্ষক কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদাহরণ দেন। তবে অনুমতি না নিয়েই কেন মাইকে ভর্তির বিজ্ঞতি প্রকাশ করলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেননি।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক অভিভাবক বলেন, বিদ্যালয়টির কিছু অতি উৎসাহি শিক্ষক অন্য একটি বিদ্যালয়ের প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়টির শিক্ষকগণ প্রাইভেট পড়ানোয় ব্যস্ত থাকেন, তারা বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে অমনোযোগী। এ কারনেই ক্রমশই বালিকা বিদ্যালয়টির পড়াশুনার মান প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় অন্য বিদ্যালয়ে ঝুঁকছে শিক্ষার্থীরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহামুদ জামান বরিশালটাইমসকে বলেন, বিদ্যালয়টির পক্ষ থেকে ছেলেদের ভর্তির জন্য লিখিত আবেদন করা হয়েছিল। সরকারিভাবে এ ধরনের কোন বিধিবিধান নেই বলে আমি তাদেরকে না বলে দিয়েছি। এরপরেও মাইকিং করানোটা ঠিক হয়নি।

এই বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম বরিশালটাইমসকে জানান, এবিষয়ে আমি এখন পর্যন্ত কিছুই জানি না।

পটুয়াখালি

আপনার ত লিখুন :

 

ভারপ্রাপ্ত-সম্পাদকঃ শাকিব বিপ্লব
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮ | বরিশালটাইমস.কম
বরিশালটাইমস মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
ইসরাফিল ভিলা (তৃতীয় তলা), ফলপট্টি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: +৮৮০২৪৭৮৮৩০৫৪৫, মোবাইল: ০১৮৭৬৮৩৪৭৫৪
ই-মেইল: barishaltimes@gmail.com, bslhasib@gmail.com
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  বরিশাল হয়ে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেললাইন চালু হবে: রেলপথ মন্ত্রী  হিজলায় পুকুরের মাছ লুট  ঝালকাঠিতে সাধু আন্তনির তীর্থ উৎসবে ভাটিকানের রাষ্ট্রদূত  কুমিল্লাকে উড়িয়ে প্লে অফে বরিশাল, মাঠে নামার আগেই বিদায় খুলনার  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত  পৌরসভা নির্বাচন: পটুয়াখালীতে প্রতীক বরাদ্দ, প্রার্থীদের প্রচারণা শুরু  বরগুনায় ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল বিনষ্ট  কৃত্রিম সংকটে বেড়েছে মুরগির দাম, কেজিতে ২০ টাকা  ৫০ বছর পর চাঁদে যুক্তরাষ্ট্র : প্রথম বাণিজ্যিক যানের অবতরণ  পর্যটকদের নতুন আকর্ষণ রাঙ্গাবালীর চর হেয়ার দ্বীপ