২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

সালিশ বৈঠকে কুপিয়ে খুনের দায় স্বীকার করেছেন তুহিন

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৫:২৯ অপরাহ্ণ, ২৫ এপ্রিল ২০১৭

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ভাইজোড়া গ্রামের ব্যবসায়ী নাজমুল হক (৫০) হত্যা মামলার একমাত্র আসামি মো. তুহিন মিয়াকে (২১) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার (২৪ এপ্রিল) রাতে উপজেলার বেতমোর গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তুহিন উপজেলার দক্ষিণ বড়মাছুয়া গ্রামের কাঞ্চন সরদারের ছেলে। তিনি নাজমুল হকের প্রথম স্ত্রী হোসনে আরা বেগমের ছোট ভাই।

পুলিশ জানায়- ২০০৮ সালের ২৬ মার্চ রাতে দক্ষিণ বড়মাছুয়া গ্রামের কাঞ্চন সরদারের ছেলে শাহিন মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ওই হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছিলেন শাহিনের বোনের স্বামী নাজমুল হক। গত সোমবার সকালে নাজমুল হক দক্ষিণ বড়মাছুয়া গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে শাহিনের পরিবার ও মামলার সাক্ষীদের সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা করেন।

কিন্তু শাহিনের পরিবারের সদস্যরা নাজমুলের প্রস্তাবে রাজি হননি। এ নিয়ে নাজমুলের সঙ্গে শাহিনের ছোট ভাই তুহিন মিয়ার বাকবিতণ্ডা হয়। কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে তুহিন মিয়া উত্তেজিত হয়ে কুড়াল দিয়ে বোনের স্বামী নাজমুলকে এলোপাতারি কুপিয়ে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে নিহত ব্যক্তির ছোট ভাই মিজানুর রহমান বাদী হয়ে তুহিনকে একমাত্র আসামি করে স্থানীয় থানায় হত্যা মামলা করেন।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) কাজী শাহনেওয়াজ বরিশালটাইমসকে বলেন, গ্রেপ্তারের পর তুহিন পুলিশের কাছে নাজমুলকে হত্যার কথা স্বীকার করেন।”

28 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন