২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

হাত-পা না নেড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পানিতে ভেসে থাকেন ষাটোর্ধ্ব জিতন মিয়া!

বরিশালটাইমস, ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৮:৫০ অপরাহ্ণ, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

হাত-পা না নেড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পানিতে ভেসে থাকেন ষাটোর্ধ্ব জিতন মিয়া!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: ঘণ্টার পর ঘণ্টা এমনকি দিনের পর দিন কোনো রকম সাহায্য ছাড়া পানিতে ভেসে থাকতে সক্ষম বিস্ময়কর জলমানব ষাটোর্ধ্ব জিতন মিয়া। তার এমন জলকেলি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে উঠেছে। জিতন মিয়ার এমন কসরত দেখতে নদী পাড়ে ভিড় করছেন বিভিন্ন বয়সের কৌতূহলী নারী-পুরুষ।

ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধ জিতন মিয়া কোনো রকম সাহায্য ছাড়াই ঘণ্টার পর ঘণ্টা এমনকি দিনের পর দিন চিৎ হয়ে মরা মানুষের মতো নদীর জলে ভেসে বেড়াতে সক্ষম। কিশোরগঞ্জের হাওড় উপজেলা ইটনার জিতন মিয়ার এমন কসরত এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। তোলপাড় সৃষ্টি করেছে কৌতূহলী বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষের মধ্যে। এমন আশ্চর্যজনক ও অবিশ্বাস্য ঘটনা দেখতে প্রতিদিনই বাড়ছে ভিড়।

জানা গেছে, কিশোরগঞ্জের হাওড় উপজেলা ইটনার খরস্রোতা মগড়া নদী পাড়ের রায়টুটি মিল্কি পাড়ার কৃষিজীবী জিতন মিয়া দীর্ঘদিন সাধনার পর রপ্ত করেছেন পানিতে হাত-পা মেলিয়ে চিৎ হয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা এমনকি দিনের পর দিন ভেসে বেড়ানোর আশ্চর্যজনক ও অস্বাভাবিক কৌশল।

স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী আজাদ হোসেন বাহাদুর বলেন, তার এমন জলকেলি দেখে অনেকে হয়তো মনে করবেন নদীতে স্রোতের টানে ভেসে যাচ্ছে এক বৃদ্ধের নিস্তেজ মরদেহ। কলাগাছের ভেলার মতো নদীতে ভেসে বেড়ানো এমন শরীরের মাঝেমধ্যেই বসছে পাখপাখালিও।

পানিতে ভেসে ভেসে ঘুমিয়েও পড়তে পারেন তিনি। ইচ্ছামতো শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়ার পাশাপাশি হাত-পা নাড়াচাড়া করলেই কেবল বোঝা যায় জীবন্ত মানুষের পানিতে এমন ভেসে বেড়ানোর আশ্চর্যজনক কসরত। আজাদ হোসেন আরও বলেন, পানিতে ভেসে বেড়ানোর সময় তার পুরো শরীর পানির নিচে নিচে নিমজ্জিত থাকলেও দুহাত এবং দুই পায়ের কিছু অংশ এবং মুখমণ্ডল ভেসে থাকে পানির উপর।

ঘণ্টার পর ঘণ্টা মৃত দেহের মতো সোজা হয়ে পানিতে ভেসে বেড়িয়ে আনন্দ উপভোগ করে থাকেন জিতন মিয়া। এলাকার মানুষের কাছে তাই তিনি জলমানব হিসাবে খ্যাতি লাভ করেছেন। জলমানব খ্যাত জিতন মিয়া জানালেন, দীর্ঘদিন ধরে নদীর পাশের নৌকা, খু্ঁটি ইত্যাদি ধরে মরার মতো হাত-পা ছড়িয়ে দিয়ে মুখমণ্ডল পানির ওপর রেখে প্র্যাকটিস করতে করতে এখন তিনি কোনো কিছুর সাহায্য ছাড়া হাত-পা না নাড়িয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা এমনকি দিনের পর দিন তিনি পানিতে ভেসে বেড়াতে পারেন। এভাবে পানিতে ভেসে ভেসে ঘুমিয়েও থাকতে পারেন তিনি।

3 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন