১৩ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

১০০ বছর বয়সে বয়স্কভাতার কাগজ পেলেন রসমতি!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০১:২৮ পূর্বাহ্ণ, ১৬ নভেম্বর ২০১৬

অবশেষে ১০০ বছর বয়সে বয়স্কভাতার কাগজপত্র হাতে পেলেন বরগুনার অসহায় বৃদ্ধা রসমতি সমদ্দার। আজ মঙ্গলবার বিকেলে বরগুনার সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক প্রণব কুমার মুখার্জী রসমতির বাড়ি বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর গ্রামে গিয়ে তার হাতে এসব কাগজপত্র তুলে দেন। তবে কবে থেকে বয়স্কভাতার অর্থ (মাসে চার’শ টাকা) হাতে পাবেন এমন প্রশ্নের জবাবে উপ-পরিচালক প্রণব কুমার মুখার্জী বলেন, এ বছরের বরাদ্দ শেষ হয়ে গেছে। আগামী ডিসেম্বর মাসে বরাদ্দ আসার কথা রয়েছে।

এর আগে গত রবিবার রসমতিকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশের পর সোমবার দুপুরে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে সাথে নিয়ে রসমতির বাড়ি যান বরগুনার জেলা প্রশাসক ড. মহা: বশিরুল আলম। এ সময় রসমতির শরীরের অবস্থা দেখে চিকিৎসাপত্র দেন চিকিৎসক ডা. আঃ রহমান।

এদিকে ১০০ বছর বয়সী অসহায় রসমতিকে সহায়তার জন্যে গত দুই দিনে দেশ-বিদেশ থেকে অনেকেই এ প্রতিনিধিকে ফোন করেছেন। এ বিষয়ে রসমতির বাড়ির পাশের বুড়িরচর এএমজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সোহেলী পারভিনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এই মুহুর্তে রসমতির জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তার দেখভালের একজন মানুষ।

তিনি আরও বলেন, রসমতির বাড়ির আশেপাশে এমন কোন দরিদ্র নারী আছে কিনা তা খুঁজে দেখা হচ্ছে। প্রতিমাসে নগদ অর্থ সহায়তার বিনিময়ে যিনি রসমতির দেখভাল করবেন। এতে একদিকে রসমতির দেখভালও হল অন্যদিকে স্থানীয় একজন দরিদ্র নারীর কর্মসংস্থানও হতে পারে।

সোহেলী পারভিন ছবি বলেন, সকলের সহযোগিতা পেলে তিনি এ বিষয়টি নিয়ে এগুতে চান।

প্রসঙ্গত, বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের বুড়িরচর গ্রামের অশীতিপর বৃদ্ধা রসমতি সমদ্দার। তার আসল বয়স কত তা কেউই বলতে পারেন না। তবে স্থানীয়দের ধারণা, রসমতির বয়স ১০০ বছর ছুঁই ছুঁই হবে। রসমতি সমদ্দারের তিন কূলে কেউ নেই। একাকী একটি টিনের খুপরি ঘরে তার বসবাস। তার এ অসহায় একাকীত্বের খোঁজ রাখেন না কেউ। খোঁজ রাখেনি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদও। বয়স এক’শ বছর হলেও তিনি পাননি কোন বয়স্কভাতা।

15 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন