২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নলছিটির গোহাইলবাড়ি কেন্দ্রে চলছে পিইসি ও ইইসি পরীক্ষা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, ২৩ নভেম্বর ২০১৯

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার গোহাইলবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নকলমুক্ত ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি সমাপনী (ইইসি) পরীক্ষা চলছে। এ কেন্দ্রে ২২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট ৩১০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে পিইসিতে ২৩৪ জন ও ইইসিতে ৭৬ জন।  পরীক্ষা শুরুর দিন (১৭ নভেম্বর) থেকে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠু পরিবেশে এ কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষার্থীরাও নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিচ্ছে।

এমনকি কেন্দ্র সচিব ও দায়িত্বরত শিক্ষকরা অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় কঠোর অবস্থানে থাকায় গত বৃহস্পতিবার ইবতেদায়ি সমাপনী’র (ইইসি) আরবি পরীক্ষায় বৈশাখিয়া স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসার ছাত্র সেজে প্রক্সি দিতে আসা মো. রাব্বি পরীক্ষার হলে প্রবেশপত্র ও উত্তরপত্র রেখে পালিয়ে যায়। রাব্বি উপজেলার বৈশাখিয়া তোফাজ্জল মানিক মিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র এবং একই কেন্দ্র থেকে গত বছর সে পিইসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। বিষয়টি গোহাইলবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সচিব মো. আব্দুল মালেক নিশ্চিত করেছেন।

এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। নকলমুক্ত ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রটি পরিদর্শনে আসা কর্মকর্তারা।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, গোহাইলবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ভাগ্নে এবার পিইসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করায় গোহাইলবাড়ি জে.এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মালেককে কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব দেয়া হয়। ইতোপূর্বে তিনি একাধিকবার এসএসসি, জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষায় সততা, নিষ্ঠা ও সফলতার সাথে কেন্দ্র সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন।

কেন্দ্র সচিব মো. আব্দুল মালেক বলেন, কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা চলছে। পরীক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে। আশাকরি পরবর্তী পরীক্ষাগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পারবো।

তিনি আরো বলেন, গত বৃহস্পতিবার ইবতেদায়ি সমাপনী’র (ইইসি) আরবি পরীক্ষা চলাকালে দায়িত্বরত শিক্ষকরা প্রক্সি পরীক্ষার ব্যাপারে সতর্ক করলে মো. রাব্বি নামে এক পরীক্ষার্থী হলে প্রবেশপত্র ও উত্তরপত্র রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রক্সি দিতে আসা রাব্বি বৈশাখিয়া তোফাজ্জল মানিক মিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। সে মাদরাসার ছাত্র সেজে প্রক্সি দিতে এসেছিল।

2 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন