বার্তা পরিবেশক, অনলাইন :: রিপন সিংহ নামের এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি ঠাকুরগাঁও সদর  উপজেলার ইয়াকুবপুর গ্রামের এক কলেজছাত্রীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে একাধিকবার ‘ধর্ষণ’ করেছেন।
এক পর্যায়ে বিয়ের জন্য চাপ দিলে রিপন ওই ছাত্রীর পরিবারের কাছ থেকে ১৫ লাখ টাকা নিয়ে দিতে বলে। কিন্তু মেয়েটির পরিবারের পক্ষে এতো টাকা দেয়া সম্ভব নয় বলে জানায়।

এর মাঝে মেয়ের বাবা চার লাখ টাকা দিতে সম্মত হলেও, রিপন সিংহ ১৭ লাখ টাকা যৌতুক নিয়ে অন্য একজনকে বিয়ে করার চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ করে ভুক্তভুগী ওই কলেজছাত্রী।

অভিযোগে জানা যায়, ঠাকুরগাঁও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নের বগাদিঘি (লাহিড়ি) এলাকার রবীন্দ্রনাথ সিংহের ছেলে রিপনের সাথে পাঁচ বছর আগে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ইয়াকুবপুর গ্রামের এক কলেজছাত্রীর মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্ক চলাকালে রিপন ওই কলেজ ছাত্রীকে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যায় এবং বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিয়মিত দৈহিক সম্পর্কে জড়ায়।

এ বিষয়ে সে গত ১৮ জুন দিনাজপুর পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে বলে জানায়।

পুলিশ সদস্য রিপনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে তদন্তের পর প্রকৃত সত্য জানা যাবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কর্মকর্তা মধূসুধন দত্ত।