কীর্তনখোলা নদী ভাঙনের কবল থেকে বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া বাজারসহ আশপাশের এলাকা রক্ষার দাবিতে নদীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল বেলা ১১টায় চরকাউয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে নৌকা-ট্রলারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে জেলা পরিষদ সদস্য মনোয়ারুল ইসলাম অলি, চরকাউয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ছবিসহ ওই এলাকার সর্বস্থরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা জানান, চরকাউয়া ইউনিয়নের ৫টি মৌজার ৪টি গ্রাম ইতিমধ্যে কীর্তনখোলা নদীগর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। গত ২৫ বছরে কীর্তনখোলা নদীতে যে পরিমান বিলীন হয়েছে, তার চেয়ে এই বছর বেশী নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। শত শত বাড়ি ঘর বিস্তীর্ণ ফসলি জমি, দোকানপাঠসহ বহু স্থাপনা বিলিন হয়ে গেছে।

কিন্তু নদী ভাঙন কবলিত মানুষ এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে কোন সাহায্য সহযোগিতা পায়নি। নদী ভাঙন রোধে ৩ বছর আগে একটি প্রকল্প তৈরী হলেও এখন পর্যন্ত সেই প্রকল্প আলোর মুখ দেখেনি।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা চরকাউয়া খেয়াঘাট থেকে জনতার হাট পর্যন্ত ৩ কিলোমিটার শহর রক্ষা বাঁধ প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং বাস্তভিটাহারা নদী ভাঙলীদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. রমজান আলী প্রামানিক বরিশালটাইমসকে জানান, নদী ভাঙনের কবল থেকে চরকাউয়া রক্ষায় একটি প্রকল্প তৈরী করে মন্ত্রণালয়ের জমা দেয়া আছে। প্রকল্পটি সরকার অনুমোদন এবং অর্থ বরাদ্দ করলেই নদী ভাঙন প্রতিরোধের কাজ শুরু হবে।”