বরগুনার আমতলীতে কলেজছাত্রী মালা আক্তার (১৭) খুনের পর লাশ ৭ টুকরো করে ড্রামে লুকিয়ে রাখার ঘটনায় আসামি অ্যাডভোকেট মাঈনুল আহসান বিপ্লব তালুকদারকে ৫ দিনের রিমান্ডে দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হুমায়ূন কবির শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ২৫ অক্টোবর পুলিশ বিপ্লবকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য করা হয়। তবে রিমান্ডের আবেদনের শুনানিতে আসামি বিপ্লবের পক্ষে কোনও আইনজীবী অংশ নেননি।

গত ২৪ অক্টোবর সকালে আমতলী হাসাপাতাল সড়কে বিপ্লবের বাসায় কলেজছাত্রী মালাকে বটি দিয়ে জবাই করে হত্যার পর লাশ সাত টুকরো করে ড্রামে ঢুকিয়ে গোসলখানায় লুকিয়ে রাখা হয়। খবর পেয়ে বিকালে আমতলী থানা পুলিশ দুটি ড্রামভর্তি খণ্ড বিখণ্ড লাশ উদ্ধার করে। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে প্রধান আসামি প্রভাষক আলমগীর হোসেন পলাশকে গ্রেফতার করা হয়। পরে পলাশের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওইদিন রাতে আমতলী সদর রোড থেকে অন্য আসামি বিপ্লবকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওই ঘটনায় আমতলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নুরুল ইসলাম বাদল বাদী হয়ে ২৪ অক্টোবর রাতে আলমগীর হোসেন পলাশ ও ভাগ্নি জামাই বাড়ির মালিক মাঈনুল আহসান বিপ্লবের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনকে আসামি করে আমতলী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

গত ২৫ অক্টোবর সকালে প্রধান আসামি পলাশ বিচারক মো. হুমায়ূন কবিরের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদ উল্যাহ বরিশাটাইমসকে বলেন, ‘আদালতে আইনজীবী বিপ্লব তালুকদারকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত দীর্ঘ শুনানি শেষে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’ জিজ্ঞাসাবাদে খুনের আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে বলে আশা করেন তিনি।