নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: স্থানীয় সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অভিযোগে পটুয়াখালী সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনির রহমান মৃধাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল রোববার (২১ এপ্রিল) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) কেন্দ্রীয় সহদপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে পটুয়াখালী জেলাধীন সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনির রহমান বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির প্রাথমিক সদস্য পদসহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বহিস্কৃত নেতা মনির রহমান মৃধা পটুয়াখালী সদর উপজেলার কমলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন। তিনি বর্তমানে একই ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হওয়ায় স্থানীয় ইউনিয়ন বিএনপির কর্মী সমর্থকদের বড় অংশ তাঁর পক্ষে নির্বাচনী মাঠে নেমেছিলেন। দলীয় সিদ্ধান্তে গতকাল রাতেই নড়েচড়ে বসেছে তাঁরা।

যেহেতু নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য তাঁদের নেতাকে বহিস্কার করা হয়েছে, সেহেতু দলীয় সিদ্ধান্তে নতুন করে স্থানীয় ভোটার কর্মী ও সমর্থকদের মাঝে একটি নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছে ইউনিয়ন বিএনপির নেতারা। ভোটের আগ মুহুর্তে নির্বাচনী মাঠে এতে অনেকটাই দুর্বল ও জনসমর্থনহীন হয়ে পড়বে বিএনপির বহিস্কৃত নেতা ও চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী মনির রহমান মৃধা।

এবিষয়ে মনির রহমান মৃধা বলেন, ‘আমি সদরে বিএনপি জন্ম দিয়েছি, সেই বিএনপি আমাকে বহিষ্কার করে। বিএনপি কোন দল হলো, এরা কেন্দ্রে বসে যা তা করে, এগুলো করেই তো দলটাকে শেষ করছে। আমি নির্বাচনে আসছি, আমার ব্যক্তিগত অবস্থান তৈরির জন্য, বিএনপির জন্য নয়। বিএনপির বহিষ্কারের আমার নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে না। উল্টো চিত্রও হতে পারে।’

জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য এড মুজিবুর রহমান টোটন বলেন, ‘দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে মনির রহমান মৃধা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছে। এ জন্য কেন্দ্রীয় কমিটি তাঁকে বহিস্কার করেছে। বর্তমানে সাংগঠনিক নিয়ম অনুযায়ী পরবর্তী যিনি আছে তিনি ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করবেন।’ এদিকে সদর উপজেলার কমলাপুর ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) আগামী ২৮ এপ্রিল ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।