বরিশাল: ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর প্রভাবে সৃষ্ট জোয়ারের পানিতে ভোলা সদর, বোরহানউদ্দিন, দৌলতখান ও তজুমদ্দিন উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে। টর্নেডোর আঘাতে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তজুমদ্দিনে। টর্নেডোর আঘাতে ওই উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের শশীগঞ্জ গ্রাম ও উপজেলা সদরের বাজার লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। এতে ১০০ কোটি টাকারও বেশী ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ক্ষতিগ্রস্তরা জানিয়েছেন। তবে, প্রশাসন এখনো পুরো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপন করতে পারেনি। রোয়ানুর প্রভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৫ কোটি টাকার বেশী ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ প্রসঙ্গে আজ সোমবার দুপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ড ভোলার নির্বাহি প্রকৌশলী বাবুল আক্তার বরিশালটাইমসকে জানান, ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর প্রভাবে সৃষ্ট জোয়ারের পানিতে ভোলায় পাউবোর প্রায় ৬৫০ মিটার বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাড়ে ৮ কিলোমিটার রাস্তা ভেঙে গেছে। এছাড়া ২ কিলোমিটার ক্লোজার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে প্রায় ৫ কোটি ২৩ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

তজুমদ্দিন বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, গত শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে টর্নেডোর আঘাতে বাজারের তিন শতাধিক ব্যবসায়ী দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে তাদের প্রায় ৫০ কোটি টাকার মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা দাবি করেন।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, টর্নেডোর আঘাতে তজুমদ্দিন বাজারের পাশেই চাঁদপুর ইউনিয়নের শশীগঞ্জ গ্রামের পাঁচ শতাধিক টিনের ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে প্রায় ৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলার দক্ষিণ সাইডে বেড়িবাঁধ না থাকায় ওই বাধ দিয়ে জোয়ারের পানি ভেতরে ঢুকে প্রায় ২৬ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমির হোসেন। তিনি আরো জানান, ঝড়ে ৮৫টি মাছ ধরার ট্রলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যার মূল্য প্রায় ১৭ লাখ টাকা।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল করিম বরিশালটাইমসকে জানান, রোয়ানুর প্রভাবে ভোলা জেলায় ৪ হাজার ৩৫৯টি পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এর মধ্যে মনপুরা উপজেলায় আড়াই হাজার পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। এ ছাড়া ৩৪৪টি ট্রলার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে প্রায় ১৭কোটি ২২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান মৎস্য কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে সোমবার দুপুরে তজুমদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন বরিশালটাইমসকে জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা তৈরি ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাল নিরুপনের কাজ চলছে।

দুর্গত এলাকা পরিদর্শন শেষে জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন বরিশালটাইমসকে বলেন, টর্নেডোর আঘাতে তজুমদ্দিনে ধারণার চেয়েও বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এখনো ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপন করা হয়নি।