তিন তালাকে বিবাহ বিচ্ছেদ নিষিদ্ধ করতে চাইছে ভারত সরকার। এ নিয়ে সিদ্ধান্তে পৌঁছতে কেন্দ্রীয় সরকারের আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিন তালাক প্রসঙ্গে কেন্দ্রের অবস্থান জানতে চেয়ে  সুপ্রিম কোর্টের হলফনামা চাওয়ার পর আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এই বৈঠক গত বুধবার অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, ভারত সরকার তিন তালাক নিষিদ্ধ করার পক্ষেই মত দেবে। সৌদি আরব, পাকিস্তান, ইরাকের মতো ইসলামি রাষ্ট্রগুলিতেও তিন তালাকে বিবাহ বিচ্ছেদের প্রথা নিষিদ্ধ রয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ, অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি, প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পর্রীকর, নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী মানেকা গাঁধী প্রমুখ আন্তঃমন্ত্রক কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকের পরে কমিটির তরফে জানানো হয়, বিশ্বজুড়েই মহিলারা সমানাধিকারের দিকে এগোচ্ছেন।

ভারতেরও সেই পথেই এগোনো উচিত। সৌদি আরব, পাকিস্তান, ইরাকের মতো ইসলামি রাষ্ট্রগুলিতেও হয় তিন তালাকে বিবাহ বিচ্ছেদের প্রথা নিষিদ্ধ করা হয়েছে, না হলে তাতে বিধিনিষেধ আরোপিত হয়েছে। ভারত সরকারও সেই পথে হাঁটার পক্ষেই সুপ্রিম কোর্টে সওয়াল করবে বলে কমিটির তরফে জানানো হয়েছে।

মুসলিমদের মধ্যে তিন তালাক এবং বহুবিবাহ নিষিদ্ধ করার আবেদন জানিয়ে ২০১৫ সালে সর্বোচ্চ আদালতে একটি জনস্বার্থ মামলা হয়।

গত ৫ সেপ্টেম্বর এই মামলার শুনানিতে বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রকে অবস্থান স্পষ্ট করতে বলেন প্রধান বিচারপতি টি এস ঠাকুর এবং বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়।

সুপ্রিম কোর্ট হলফনামা জমা দেওয়ার জন্য কেন্দ্রকে চার সপ্তাহ সময় দিয়েছে। সর্বভারতীয় মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড কিন্তু তিন তালাক ও বহুবিবাহ নিষিদ্ধ করার বিরুদ্ধে সওয়াল করছে।

বোর্ডের বক্তব্য, কোরআন অনুযায়ী মুসলিম ধর্মে তিন তালাক এবং বহুবিবাহ সিদ্ধ। তা নিষিদ্ধ করা ধর্মবিরোধী হবে। আদালত এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করলেই ভাল হয় বলে মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের মত।