একের পর এক বিস্ফোরণকাণ্ডে বাজার থেকে গ্যালাক্সি সিরিজের নোট ৭ তুলে নেওয়ার ঘোষণা দিতে বাধ্য হয়েছে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ। তাদের এ ঘোষণায় কোম্পানিটির শেয়ারবাজারে ব্যাপক পতন হয়েছে। গত সপ্তাহে স্যামসাংয়ের শেয়ারমূল্য কমেছে ৬ শতাংশ।

গত আগস্টে ঢাকঢোল পিটিয়ে বাজারে আসা গ্যালাক্সি নোট ৭ জনপ্রিয়তাও পেয়েছিল বেশ। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই গ্রাহকের হাতে চলে যায় ২৫ লাখ স্মার্টফোন।

সপ্তাহ দুই আগেই আসতে থাকে বিস্ফোরণের খবর। জানানো হতে থাকে, নোট ৭ এর ব্যাটারি গরম হয়ে হঠা‍ৎই বিস্ফোরিত হয়।

মার্কিন গ্রাহক নিরাপত্তা সংস্থা সিপিএসসির এক হিসাব মতে, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে থাকা নোট ৭ এর স্মার্টফোনগুলোর ৯২টি বিস্ফোরিত হয়েছে। এতে ২৬ গ্রাহক হয়েছেন দগ্ধ, আর ৫৫ গ্রাহক শিকার হয়েছেন ক্ষয়ক্ষতির।

এসব খবরের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সিপিএসসি বলেছে, যেসব গ্রাহক নোট ৭ ফোনটি ব্যবহার করছেন, তারা নিরাপত্তার স্বার্থে এটি বন্ধ করে এখন নিকটস্থ রিটেইল আউটলেটে যোগাযোগ করুন। তাদের নোট ৭ এর বদলে নতুন আরেকটি স্মার্টফোন অথবা অর্থফেরত দেওয়া হবে।

আর স্যামসাংয়ের তরফ থেকেও বলে দেওয়া হয়েছে স্মার্টফোনটি বদলের খবর। তারা জানিয়েছে, ২১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বেশির ভাগ রিটেইল আউটলেটে নোট ৭ বদল করা যাবে, এমনকি নেওয়া যাবে অর্থফেরতও।

বিস্ফোরণের খবর ছড়ানোর প্রেক্ষিতে বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্সে স্যামসাং স্মার্টফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নিষিদ্ধ করা হয়েছে স্যামসাংয়ের অন্যান্য ডিভাইসের ব্যবহারও।

নোট ৭ এর কারণে দক্ষিণ কোরিয়ান কোম্পানি স্যামসাংয়ের পতনের খবরের সবশেষটিই বৃহস্পতিবার জানালো সংবাদমাধ্যম।