বরিশাল তথা গোটা দক্ষিণাঞ্চলকে অপরাধমুক্ত রাখতে নয়া উদ্যোগ নিয়ে মাঠে নেমেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব-৮)। নয়া এই উদ্যোগ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বরিশাল নগরীসহ গোটা বিভাগে চালানো হয় ব্যতিক্রমধর্মী প্রচারণা। যানবাহনের সামনে ও পেছনে জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদকবিরোধী লিফলেট সাটিয়ে অপরাধ প্রতিরোধে চাইছে জনসচেতনতা বাড়াতে। যার অংশ হিসেবে গতকাল বুধবার দিনভর এ অঞ্চলের রাজপথে থেকে যানবাহনে লিফলেট লাগাতে দেখা গেছে। বিশেষ করে বরিশাল র‌্যাবের কোম্পানী কমান্ডার রুহুল আমিন নিজে রূপাতলী এলাকায় দাড়িয়ে থেকে একটি অটোরিকশায় লিফলেট লাগিয়ে যান।

 

র‌্যাবের এই উদ্যোগ কিছুটা হলেও অপরাধ বা অপরাধীদের দমাতে সহায়ক হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অবশ্য র‌্যাবের এই কৌশলী  প্রচারণায় বরিশালবাসীরও সমর্থন রয়েছে। বিশেষ করে প্রচারণার চিত্র অনেকে মোবাইলে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তথা ফেসবুকে তুলে ধরছে। সেই সাথে র‌্যাবের এই উদ্যোগকে প্রশংসনীয় হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। ফলে বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া ছড়িয়ে পড়েছে। কেউ এর বিরোধীতা না করে উদ্যোগটি বাস্তবায়ন করার ক্ষেত্রে র‌্যাবকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। যদিও বরিশাল তথা গোটা দক্ষিণাঞ্চলে এ যাবৎকাল পর্যন্ত সে ধরণের কোন সন্ত্রাসী হামলা বা জঙ্গিবাদের মত ঘটনা ঘটেনি। কারণ এই বাহিনীটি বরিশালে আসার পর থেকেই অপরাধ দমনে সদা তৎপর রয়েছে।

 

এমনকি বিভাগের বাইরে সুন্দরবনেও ভয়ানক জলদস্যু বা বনদস্যুদের দমিয়ে রাখতে কাজ করছে। এতে তাদের বেশ সফলতাও রয়েছে। ইতিমধ্যেই তিন তিন বার দস্যুদের আত্মসমপর্ণনের মত ঘটনা সৃষ্টি করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তাছাড়া বিগত সময়ে বরিশাল নগরীতে ধারাবাহিক মাদক উদ্ধারে সফল অভিযান মাদক ব্যবসায়িদের ভীতির মধ্যে ফেলেছে।

 

যার দরুণ এ অঞ্চলে মাদক ব্যবসায়িদের কাছে র‌্যাব নামটি এক ধরণের আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়। ফলে দেশের অন্যান্য স্থানের তুলনায় বরিশাল অঞ্চলে হ্রাস পায় অপরাধ প্রবণতা। অবশ্য বর্তমান প্রেক্ষাপটেও র‌্যাব বিশেষ ভূমিকা রাখায় অঘটন তেমন নেই বললেই চলে।

 

এমতাবস্থায় র‌্যাবের কর্মকর্তা কোম্পানী কমান্ডার রুহুল আমিনের ভাষ্য হচ্ছে, বিগত দিনের ন্যায় অপরাধ দমাতে বাহিনী সদা জাগ্রত। নিরাপত্তার পাশাপাশি গণমানুষকে সচেতন করতে তাদের এই লিফলেট সাটানো উদ্যোগ। তার মতে লিফলেটটি অপরাধ কমাতে কিছুটা হলেও সহায়ক হবে। কারণ যানবাহনে চলাচলকারী যাত্রীদের দৃষ্টি আকর্ষণের মত করেই লিফলেটটি তৈরি করা হয়েছে।’