ট্রান্সফরমার অকেজো হওয়ায় পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১১ দিন যাবৎ পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। ফলে হাসপাতালের রোগী, ডাক্তার ও কর্মচারিদের ভোগান্তি দেখা দিয়েছে।

গত ১১ দিন আগে হঠাৎ ট্রান্সফরমারটি পুড়ে গেলে হাসপাতালের ডাক্তার, কর্মচারির বাসভবনসহ হাসপাতালে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। বিকল্প ব্যবস্থায় বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে বাতি ও ফ্যান চালু করা হলেও পানির পাম্প বন্ধ রয়েছে।

হাসপাতালের ভর্তি হওয়া রোগী নদমূলা গ্রামের মোঃ ইউনুস আলী সরদার (৭০) পানি না থাকায় দূরাবস্থার কথা জানিয়ে বলেন, ‘আমি এগার দিন এখানে আছি পানি নাই। তাই গোসল করতে পারি না। শৌচাগার ও খাবার পানি বাহির থেকে আনতে হয়।’

ইকরির জিহাদুল (২৪) চারদিন আগে ভর্তি হয়েছেন তিনিও একই অভিযোগ করলেন। মহিলা ওয়ার্ডে আছেন ভিটাবাড়িয়া গ্রামের হেরিয়া বেগম (৩৫)। পানির অভাবের বর্ণনা দিয়ে তিনি বললেন, বাথরুমে পানি ঢালতে না পারায় দুর্গন্ধে রোগীদের অবস্থা আরো খারাপ হচ্ছে।

এ ব্যাপারে হাসপাতালের পরিচালক (টিএইচ) ডা: শাহাদাৎ হোসেন হাজরা বলেন, বিষয়টি আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও বিদ্যুৎ কর্মকর্তাকে অবহিত করেছি।

ভান্ডারিয়া বিদ্যুৎ সরবরাহকারী আবাসিক প্রকৌশলী মো: দেলোয়ার হোসেন বলেন, ট্রান্সফরমারের জন্য চেষ্টা করছি আশা করি এক/দুই দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান হবে।